কড়া নিরাপত্তায় বাঘাইছড়িঃ নিয়মিত যৌথ টহলের পাশাপাশি চলছে জোরদার তল্লাশী!

॥ ওমর ফারুক সুমন ॥

বাঘাইছড়িতে জোড়া খুনের ঘটনায় নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করেছে স্থানীয় প্রশাসন। ১১ আগস্ট মধ্যরাতে উপজেলা সদরের বাবু পাড়া রিপন চাকমার বাড়ীতে এই হত্যাকান্ড সংঘঠিত হয়। এই হত্যাকান্ডের জন্য জেএসএস মূল দলকে দায়ী করেছে নিহতের পরিবার।

বিজিবি ও পুলিশের নিয়মিত টহলের পাশাপাশি সন্দেহজনক ব্যাক্তি ও যানবাহন তল্লাশি করছে মারিশ্যা জোনের বিজিবি সদস্যরা। পুলিশি তৎপরতাও চোখে পড়ার মত।

বাড়তি নিরাপত্তার বিষয়ে বাঘাইছড়ি থানার ওসি এমএ মনজুরুল বলেন এটি আমাদের নিয়মিত কাজের অংশ। আগের দিন মধ্যরাতের জোড়া খুনের বিষয়টি সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি বলেন দেখেন পাহাড়ে টার্গেট কিলিংটাই বেশী হচ্ছে ইদানিং।

টার্গেট কিলিং বন্ধ করা কঠিন হয়ে পড়েছে জানিয়ে তিনি আরো জানান, রাতের অন্ধকারে নদীপথে এসে চোরাগোপ্তা হামলা করে পালিয়ে যাচ্ছে সন্ত্রাসীরা। বাঘাইছড়ি থানার সাথে সদরের যোগাযোগ ব্যবস্থা ভালো না থাকায় আমরা সংবাদ পেলেও ঘটনাস্থলে যেতে যেতে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যাচ্ছে তাই আমি থানার সাথে সদরের যোগাযোগ ব্যাবস্থাটা উন্নয়নের জোর চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। আমরা ঘটনার সাথে সাথেই ওখানে পৌঁছে মরদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য খাগড়াছড়ি পাঠিয়েছি।

এই হত্যাকান্ডের পেছনে কোন দলের হাত থাকতে পারে এমন প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, এখনো কোন পক্ষ থানায় মামলা করেনি কিন্তু বিভিন্ন মাধ্যমে কথা বলে এটা নিশ্চিত হয়েছি যে এই হত্যাকান্ডটি জেএসএস মূল দল ঘটিয়েছে।

তাই আমরা বিজিবির সহায়তায় এলাকার পরিবেশ শান্ত করার লক্ষ্যে ও দোষীদের গ্রেপ্তারে তল্লাশি কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছি। বর্তমানে এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। আশাকরি অল্প সময়ে পরিবেশ স্বাভাবিক হয়ে উঠবে।