১৩ বছরের কিশোরীকে বিয়ের অপরাধে মানিকছড়িতে বরের জেল-জরিমানা

॥ আবদুল মান্নান – মানিকছড়ি ॥

মানিকছড়ির ডাইনছড়ি দাখিল মাদ্রাসার নবম শ্রেণির কিশোরী(১৩)কে হলফনামা মূলে বিয়ে করার অপরাধে বর মো. আকতার হোসেন (২১)কে ৭ দিনের জেল ও বরের পিতা মো. তাজুল ইসলামকে ৫ হাজার এবং কনের পিতা মো. আবুল কাশেমকে ১ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তামান্না মাহমুদ।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার ডাইনছড়ির বাঞ্চারাম পাড়ার মো. তাজুল ইসলামের ছেলে মো. মো. আকতার হোসেন(২১) গত ১৫ জুন খাগড়াছড়িতে হলফনামা মূলে বিয়ে করেন ডাইনছড়ি দাখিল মাদরাসার ৯ম শ্রেণির কিশোরী ছাত্রীকে! ১৫ আগস্ট বৃহস্পতিবার আনুষ্ঠানিকভাবে বিষয়টি জানান দিয়ে বর পক্ষ আয়োজন করেন বৌ-ভাতের। এতেই বিপত্তি! দুপুর সাড়ে ১২টায় উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা মো. কামরুল আলম থানার অফিসার ইনচার্জ আমির হোসেন এর নির্দেশে এএসআই মাহবুব তার সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে উপস্থিত হন বরের পিত্রালয়ে। বর-কনে ও উভয়ের পিতাকে আটক করে নিয়ে আসেন উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার তামান্না মাহমুদ বাল্য বিয়ের বিষয়ে জানতে চাইলে বর পক্ষ হলফনামা প্রদর্শণ করে বিয়ের বৈধতা দাবী করেন। এ সময় উপজেলা নির্বাহী অফিসার তামান্না মাহমুদ জানান, হলফনামায় বাল্য বিয়ে আইনসিদ্ধ হয়না। তাই এ অপরাধে বর মো. আকতার হোসেন (২১)কে ৭ দিনের জেল ও পিতা মো. তাজুল ইসলামকে ৫ হাজার এবং কনের পিতা মো. আবুল কাশেমকে ১ হাজার টাকা জরিমানা করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তামান্না মাহমুদ। পরে পুলিশ বর মা. আকতার হোসেনকে জেল-হাজতে প্রেরণ করেন।