কাউখালীতে যৌথবাহিনীর অভিযানে ইউপিডিএফ’র দুই কালেক্টর আটক

॥ নিজস্ব প্রতিবেদক ॥

চাঁদার টাকা পাচারকালে রাঙ্গামাটির কাউখালী থেকে চুক্তি বিরোধী ইউপিডিএফ’র দুই কালেক্টরকে আটক করেছে যৌথবাহিনী। শনি ও রবিবার পৃথক অভিযানে দূর্গম বটতলী পুরাতন পোয়াপাড়া এলাকা থেকে তাদের আটক করা হয়।

পুলিশ জানায়, শনিবার (১৭ আগস্ট) রাত ৩টা নাগাদ ইউপিডিএফ কাশখালী ইউনিটের কালেক্টর হ্লাগ্যা মারমা(৩৫) চাঁদার টাকা নিয়ে সিএনজি যোগে রাঙ্গামাটি যাচ্ছিলো। এমন তথ্যের ভিত্তিতে যৌথবাহিনী কাশখালী এলাকায় অভিযান চালিয়ে সিএনজিসহ তাকে আটক করে। এ সময় তার কাছে নগদ ৫১,৮০৭ টাকা ও বিভিন্ন মডেলের ৩টি মোবাইল সেট উদ্ধার করে। আটককৃত ইউপিডিএফ নেতা উপজেলার বেতবুনিয়া চৌধুরী পাড়া গ্রামের ক্যাজাইলা মারমার ছেলে।

আটক হ্লাগ্যা মারমা দীর্ঘদিন যাবৎ কাউখালীর ঘাগড়া ইউনিয়নের কাশখালী, নাভাঙ্গা, নাকশাছড়ি বটতলী পাড়াসহ আশপাশের এলাকায় ইউপিডিএফ’র কালেক্টর হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছে বলে স্বীকার করেছে। সে জানায়, উত্তোলিত চাঁদার টাকা নিয়ে সে রাঙ্গামাটি যাচ্ছিলো। কাউখালী ইউনিটের কালেক্টরের দায়িত্বে থাকা ইউপিডিএফ নেতা প্রত্যাশা চাকমার রাঙ্গামাটি কার্যালয়ে এ টাকা পৌঁছানোর কথা ছিলো বলেও সে জানায়। ঐ নেতার বাড়ি রাঙ্গামাটি জেলার নানিয়ার চর উপজেলায় বলে জানা গেছে।

একই অভিযোগে শনিবার রাতে পুরাতন পোয়াপাড়া থেকে ঐ এলাকার কালেক্টরের দায়িত্বে থাকা ভালুরাম চাকমার ছেলে প্রশিক্ষণ চাকমা (৩৯) কে নগদ টাকাসহ আটক করে যৌথবাহিনী। আটক প্রশিক্ষণের বিরুদ্ধে এর আগেও চাঁদাবাজির মামলা রয়েছে বলে জানিয়েছেন কাউখালী থানার ওসি শহিদ উল্লাহ পিপিএম। ওসি জানান, হ্লাগ্যা মারমা দীর্ঘদিন যাবৎ এ এলাকায় চাঁদা উত্তোলনের দায়িত্বে ছিলো বলে জানিয়েছে এবং চাঁদার টাকা ইউপিডিএফ’র রাঙ্গামাটি দপ্তরে নিয়ে যাচ্ছিলো।