৩৫ কাঠুরিয়া হত্যার বিচার ও ক্ষতিগস্ত পরিবারদের পুনর্বাসনের দাবীতে রাঙ্গামাটিতে সাংবাদিক সম্মেলন

॥ নিজস্ব প্রতিবেদক ॥

রাঙামাটির লংগদু উপজেলার পাকুয়াখালীতে ৩৫ জন বাঙালী কাঠুরিয়া হত্যার বিচার ও ক্ষতিগস্ত পরিবারদের পুনর্বাসনের দাবীতে সাংবাদিক সম্মেলন করেছে পার্বত্য চট্রগ্রাম সম-অধিকার আন্দোলন। সোমবার ১২ টায় রাঙামাটির স্থানীয় একটি রেস্তোরায় এই সাংবাদিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

সংবাদ সম্মেলনে বক্তারা বলেন, ১৯৯৬ সালের তৎকালীন বিচ্ছিন্নতাবাদী সন্ত্রাসী গ্রুপ শান্তিবাহিনী লংগদুর ৩৫ জন কাঠুরিয়াকে ব্যবসায়িক হিসাবের কথা বলে পাকুয়াখালী নামক গহীন অরণ্যে ডেকে নিয়ে তিন দিন কাঠুরিয়াদের হাত-পা ও চোখ বেঁধে নির্যাতন চালিয়ে ৯ সেপ্টেম্বর হত্যা করা হয় ৩৫ জন কাঠুরিয়াকে। ঘটনার পর পর তৎকালীন সরকারের একটি সংসদীয় টিম লংগদু সফর করে এ ঘটনার সুষ্ঠ তদন্ত ও দোষীদের বিচারও ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের সন্তানদের লেখা-পড়ার দায়িত্ব নেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে আসলেও দীর্ঘ ২৩ বছরে এখনো পর্যন্ত বিচারের আলো ও ক্ষতিগস্ত পরিবারদের কোনো প্রকার সাহায্য প্রদান করা হয়নি।

তারা আরোও বলেন, পার্বত্যঅঞ্চলে শান্তি প্রতিষ্ঠার জন্য পাকুয়াখালী গণহত্যা সহ সকল হত্যাকান্ডের তদন্তের প্রতিবেদন প্রকাশ করে বিচার প্রক্রিয়া শুরু করা না হলে পার্বত্যঞ্চলে শান্তি প্রতিষ্ঠা কখনোই সম্ভব নয়। প্রধানমন্ত্রী বরাবরে স্মারকলিপি , ঢাকা জাতীয় প্রেস ক্লাবে মানববন্ধন কর্মসূচি হাতে নিয়েছি।এই সময় তারা ৯ দফা দাবি পেশ করেন।

লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন পার্বত্য চট্রগ্রাম সম-অধিকার আন্দোলনের সাধারন সম্পাদক জাহাঙ্গীর কামাল। এই সময় অন্যানের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সহ-সভাপতি শাহজাহান,কোষাধক্ষ মতিয়ার রহমান বিশ্বাস,সহ-সভাপতি শাহ আলম,সাধারন সম্পাদক জাহাঙ্গীর কামাল,সাংগঠনিক সম্পাদক আবু বকর ছিদ্দিক সহ অন্যান্য সদস্যবৃন্দ।

পাকুয়াখালি কর্মসূচি উপলক্ষ্যে রাঙামাটির লংগদুতে ক্ষতিগস্ত পরিবারগুলো মানববন্ধন,মিলাদ মাহফিল,সমাবেশ ও বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করছে বাঙালী সংগঠনগুলো।