যোগ্য নেতৃত্বে প্রাণ ফিরবে খাগড়াছড়ি ছাত্রলীগে

॥ আল-মামুন – খাগড়াছড়ি ॥

এবার নতুন নেতৃত্ব প্রাণ ফিরবে খাগড়াছড়ি জেলা ছাত্রলীগে। গঠনতান্ত্রিক মেয়াদ উত্তীর্ণের প্রায় চার বছর পর খাগড়াছড়ি জেলা ছাত্রলীগের সম্মেলনের প্রস্তুতি শুরু হয়েছে। বিগত ২০১৫ সালের ১ জুন অনুষ্ঠিত সম্মেলনের মাধ্যমে টেকো চাকমাকে সভাপতি ও জহির উদ্দিন ফিরোজকে সা: সম্পাদক করে ১২১ সদস্যের খাগড়াছড়ি জেলা ছাত্রলীগের কমিটি গঠিত হয়।

ইতি মধ্যে নিয়মতান্ত্রিক ভাবে বেশির ভাগের ছাত্রত্ব যেমন চলে গেছে, তেমনি অনেকেই আবার বিয়ে করার ফলে গঠনতন্ত্র অনুসারে ছাত্রলীগ থেকে বাদর পথে হেঠেছেন। এ অবস্থায় নতুন নেতৃত্ব সৃষ্টির লক্ষ্যে দীর্ঘদিন পর আগামী ২১ সেপ্টেম্বর জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সভা আয়োজনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

এতে উপজেলাগুলোর কাউন্সিলের সময় ও দিনক্ষণ ঠিক করাসহ সাংগঠনকে গতিশীল আরো শক্তিশালী করে কমিটি গঠনের বিষয়ে আলোচনার কথা জানান সংগঠনটির নেতারা। খাগড়াছড়ি জেলা আওয়ামীলীগের শিক্ষা ও মানব সম্পদ সম্পাদক ও সাবেক ছাত্রনেতা মো: দিদারুল আলমের সাথে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ও সা: সম্পাদকসহ অন্যান্য গুরুত্বপূর্ন নেতাদের উপস্থিতিতে গত শনিবার রাতে অনানুষ্ঠানিক এক সভায় এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয় বলে জানা যায়।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বর্তমান জেলা কমিটির সভাপতি ও সা: সম্পাদক ছাড়াও সবকটি উপজেলার সভাপতি-সা: সম্পাদক’রা দলের সুবাদে এখন রীতিমতো যেমনি স্বচ্ছল। তেমনি রাজনীতির পাশাপাশি ব্যবসা-বাণিজ্যেই বেশি মনোযোগী। তাই জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি এবং সংসদ সদস্য কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা ছাত্র রাজনীতির নেতৃত্ব প্রকৃত ছাত্রদের হাতে তুলে দেয়ার তাগিদ দেন সংশ্লিষ্টদের।

জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক জহির উদ্দিন ফিরোজ জানান, সামনের সপ্তাহে অনুষ্ঠিতব্য সাধারণ সভায় জেলার প্রতিটি সাংগঠনিক ইউনিটের সম্মেলনের দিন-তারিখ চূড়ান্ত করা হবে। একই সাথে যত শীঘ্রই সম্ভব জেলা ছাত্রলীগের সম্মেলনের ওপর জোর দেয়া হবে।

জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি টেকো চাকমা জানান, কমিটির বেশিরভাগ নেতার ছাত্র রাজনীতি করার বয়স পেরিয়ে গেছে। স্বাভাবিক নিয়মে অনেকের ছাত্রত্বও নেই। তাই সম্মেলন করে করে বিদায় নেয়া এখন সময়ের দাবি।

জেলা আওয়ামীলীগের ছাত্রলীগ বিষয়ক স্টিয়ারিং কমিটির প্রধান মো: দিদারুল আলম জানান, জেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি ও সংসদ সদস্য কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা’র নির্দেশনায় জেলা ছাত্রলীগসহ সবকটি ইউনিটের হালনাগাদ কমিটি গঠনের প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। গঠনতান্ত্রিক নিয়মে সবকিছু যাচাই-বাছাই করেই নেতৃত্ব ঠিক করা হবে। সে সাথে মাদকমুক্ত সংগঠন গড়ার লক্ষ কাজ চলছে বলে তিনি জানান।

এ সময় তিনি জানান, খাগড়াছড়ি ছাত্রলীগের সাবেক নেতাদের পরামর্শও নেয়া হচ্ছে পরবর্তী নেতৃত্ব তৈরির স্বার্থে করনীয় ও কমিটি গঠনের মাধ্যমে খাগড়াছড়ি জেলা ছাত্রলীগকে আরো শক্তিশালী সংগঠনে রূপ দিতে সাধারণ সভা আয়োজনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে তিনি জানান।

জেলা আওয়ামীলীগের যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক মংশেইপ্রু চৌধুরী অপু বলেন, আগামী কাউন্সিলে যোগ্য নেতৃত্বের মাধ্যমে খাগড়াছড়ি জেলা ছাত্রলীগ সু-সংগঠিত ও শক্তিশালী সংগঠনে রূপান্তরিত হবে। সে সাথে সু-শৃঙ্খল ও দেশ গড়ার প্রত্যয় নিয়ে ছাত্রলীগ কাজ করবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।