সড়ক নয় যেন ফসলী জমি!

॥ কাউখালী প্রতিনিধি ॥

কাউখালী উপজেলার কলমপতি ইউনিয়নের সুগারমিল পূর্ব আদর্শগ্রাম সড়কটি সাধারণ মানুষের জন্য বিষফোঁড়া হয়ে দাড়িয়েছে। সড়কটি এখন মানুষের চলাচলের পরিবর্তে কৃষকদের কৃষি জমিতে রুপান্তরিত হয়ে পড়েছে। হঠাৎ কেউ দেখলে এটিকে সড়ক নয় ফসলীর জমি মনে করবে। ফলে প্রায় দেড়শতাধিক পরিবার এক কিলোমিটার সড়কের কাছে বন্দি হয়ে থাকতে হয় পুরো বর্ষা মৌসুমজুড়ে।

জানা যায়, পূর্ব আদর্শগ্রাম থেকে কাউখালী-সুগারমিল মুল সড়ক পর্যন্ত এক কিলোমিটার কাঁচা সংযোগ সড়ক রয়েছে। সড়কের আশেপাশে বসবাস করছে দেড়শতাধিক পরিবার। সামান্য বৃষ্টিতেই রাস্তায় হাঁটু পরিমাণ কাদা জমে যায়। এছাড়াও বৃষ্টির পানিতে পাহাড়ি মাটি রাস্তার উপর এসে জমতে থাকে। ফলে এ রাস্তা দিয়ে গাড়ী দূরের কথা সাধারণ মানুষের হেঁটে যাওয়ার সাধ্যও থাকেনা। এলজিইডি ও সড়ক ও জনপথ বিভাগ বছর জুড়ে বড় বড় কাজ নিয়ে পড়ে থাকলেও গ্রামের ব্যস্ততম এসম সড়কগুলোর ব্যাপারে তাদের তেমন কোন আগ্রহ দেখা যাচ্ছেনা। গ্রামীন অবকাঠামো ও রাস্তাঘাট উন্নয়নে সরকার প্রতি বছর কোটি কোটি টাকা বরাদ্ধ দিলেও এর ছিটেফোটার দেখাও মেলেনি এ এলাকার মানুষের।

কলমপতি ইউপি চেয়ারম্যান ক্যজাই মারমা জানান, পাকা সড়ক থেকে আধা কিলোমিটার রাস্তার জন্য চলতি অর্থ বছরে প্রকল্প দেয়া হয়েছে। বরাদ্ধ পেলে রাস্তার কাজ শুরু হবে। ৯নং ওয়ার্ডের মেম্বার রেজাউল করিম জানান, রাস্তাটি এইচবিবি করার জন্য জেলা পরিষদসহ সংশ্লিষ্ট দপ্তরে একাধিকবার আবেদন করা হয়েছে। এরপরও কাজের কাজ কিছুই হচ্ছেনা। তবে চলতি অর্থ বছরে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে রাস্তাটি এইচবিবি করে দেয়া হবে এমন আশ্বাস দেয়া হয়েছে বলে তিনি জানান।

বিকল্প কোন রাস্তা না থাকায় হাঁটু সমান কাদা ঠেঙ্গিয়ে দৈনিক শত শত স্কুল কলেজগামী ছাত্র-ছাত্রীকে এ রাস্তা দিয়েই চলাচল করতে হচ্ছে। স্থানীয় বাসিন্দা মাহফুজুর রহমান জানান, সারা দেশে উন্নয়নের জোয়ারের কথা শুনতে পায়। কিন্তু মাত্র এক কিলোমিটার রাস্তার জন্য দেড়শ পরিবারের মানুষের যেন কষ্টে কোন শেষ নেই। স্থানীয় বাসিন্দা প্রবাসী আবুল হাসান ক্ষোভ প্রকাশ করে জানান, রাস্তার দূরবস্থার কারণে পুরো বর্ষা মৌসুমে ছেলে মেয়েদের স্কুলে যাওয়া সম্ভব হয়না। ফলে বছর শেষে তাদের লেখাপড়ার মান অত্যন্ত খারাপ হয়ে পড়ে এবং অন্যদের তোলনায় অনেক পিছিয়ে পড়ছে আমাদের ছেলে মেয়েরা।

কাউখালী উপজেলা প্রকৌশলী পরিতোষ চন্দ্র দে জানান, আমরা মূল সড়কগুলো নিয়ে চিন্তায় আছি। তিনি জানান, যেখানে দু’বছর কাউখালী-সুগারমিল মূল সড়কের বরাদ্ধ নিতে আমাদের কষ্ট হয়ে যাচ্ছে সেখানে সংযোগ সড়কের কাজ করা আমাদের পক্ষে অসম্ভব। এলাবাসী পূর্ব আদর্শগ্রম সংযোগ সড়কটি দ্রুত সংস্কারের দাবী জানিয়েছেন।