মানিকছড়িতে ৬২পিস ইয়াবাসহ যুবক আটক!

॥ মানিকছড়ি প্রতিনিধি ॥

মানিকছড়ির জনপদে ইয়াবাসেবী দিন বাড়ছে। ফলে প্রশাসনের চোখ ফাঁকি দিতে ব্যবহার করা হচ্ছে আন্তঃসড়ক! আর বেচা-বিক্রি হচ্ছে শিশু-কিশোরদের হাতে! গড়ে প্রতি মাসেই ইয়াবা নিয়ে কেই না কেউ আটক হচ্ছে পুলিশের হাতে। আর এরই অংশ হিসেবে ২৬ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যায় কালাপানি নতুন বাজার হয়ে মানিকছড়ি আসার পথে জনগণের হাতে ৬২ পিস ইয়াবাসহ ধরা পড়লেন শাহাদাত হোসেন(২৫) নামের এক যুবক। চলতি মাসে এখানে মাদক নিয়ে মামলা হয়েছে তিনটি।।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার সড়ক-মহাসড়কে পুলিশের কড়া নজরদারীতে ইয়াবা ব্যবসায়ী নিত্য-নতুন কলাকৌশলে তাদের ব্যবসা চালিয়ে যাওয়ার সুযোগ খুঁজছে। তাই এখন সড়ক-মহাসড়কে নয়, তারা ইয়াবা আনছে আন্তঃসড়কে! বিশেষ উপজেলার আন্তঃপ্রবেশদ্বার ফটিকছড়ির কাটিরহাট সড়ক ও নেপচুন চা বাগান সড়কে ইয়াবা ঢুকছে। ফলে পুলিশও কড়ানজরদারী করছে ওইসব জনপদের দিকে। ইয়াবার বিষয়ে ইতোমধ্যে ইউনিয়ন ও উপজেলা পর্যায়ে পুলিশিং কমিটির সভা,স্কুল ছাত্র-ছাত্রীদের সাথে পুলিশের মতবিনিময়ে কর্মকর্তা ইয়াবা ব্যবসায়ী ও ক্রেতাদের ধরিয়ে দিতে সকলের সহযোগিতা চাওয়া হচ্ছে। ফলে দেখা গেছে বিভিন্ন স্থানে সচেতন লোকজন সন্দেহভাজনদের চলাফেরায় নজরদারী করছে।

২৬ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যায় ফটিকছড়ির নেপচুন চা- কালাপানি নতুন বাজার( সেমুতং গ্যাস ফিল্ড) সড়ক দিয়ে মোটর সাইকেল যোগে এক যুবক দ্রুত গতিতে মানিকছড়িতে আসার পথে লোকজন মোটরসাইকেল চালকের গতিরোধ করে তার দেহ তল্লাশি করে ইয়াবার প্যাকেট পায়। বিষয়টি মানিকছড়ি থানায় অবহিত করলে অফিসার তদন্ত মো. মাসুদ করিম সিকদার দ্রুত ফোর্স পাঠিয়ে জনতা কর্তৃক আটক করা যুবক মো. শাহাদাত হোসেন(২৫),পিতা. মো. হাফেজ আহম্মদ, সাং- ডাইনছড়ি,মানিকছড়িকে থানায় নিয়ে আসেন। এ প্রসঙ্গে অফিসার তদন্ত মো. মাসুদ করিম সিকদার ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, ৬২ পিস ইয়াবাসহ আটক যুবককের বিরুদ্ধে মাদক নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলার প্রস্তুতি চলছে।