পেঁয়াজে আগুন!

॥ নিজস্ব প্রতিবেদক ॥

সারাদেশের ন্যায় রাঙামাটি শহরেও হঠাৎ করেই পেঁয়াজের অগ্নিমূল্যে ক্ষোভ বাড়ছে জনজীবনে। দফায় দফায় দাম বেড়ে পেঁয়াজের কেজি ১২০ টাকায় পৌছেছে । যা মধ্য ও নিন্মমধ্যবিত্ত পরিবারের কাছে যেন আকাশের চাঁদ।

শহরের বনরুপা, তবলছড়ি, রিজার্ভ বাজারে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, একেক বিক্রেতা পেঁয়াজের দাম ভিন্ন ভিন্ন মূল্যে বিক্রি করছে।কেউ বা কেজি ৮০ কেউ বা ৯০ আবার কেউ ১২০ টাকা করে বিক্রি করছে। এসময় পাইকারী ও খুচরা ব্যবসায়ীদের সাথে পেঁয়াজের আকাশচুম্বী দামের কারন জানতে চাইলে বিক্রেতারা জানান,আমাদের চড়া দামে ক্রয় করতে হচ্ছে।তাই আমাদের ও চড়া দামে বিক্রি করতে হচ্ছে।

বাজার করতে আসা এক ক্রেতা জানান, বর্তমানে বাজারে যে হারে পেঁয়াজের দাম বৃদ্ধি পাচ্ছে এতে করে আমাদের মতো সাধারণ মানুষের পেঁয়াজ ক্রয় করা অসম্ভব হয়ে পড়ছে। যে টাকায় মাসের দুই থেকে তিন কেজি ক্রয় করার ক্ষমতা ছিলো সে টাকায় এখন মাসে এক কেজি ক্রয় করাও সম্ভব হচ্ছেনা।

বাজার করতে আসা এক নারী জানান, তিন কেজি চালের দাম দিয়ে এক কেজি পেয়াজ কিনতে হচ্ছে।এভাবে চলতে থাকলে পেঁয়াজ সাধারণ মানুষের পক্ষে পেঁয়াজ ক্রয় করা সম্ভব হবেনা।

এদিকে পেঁয়াজের দাম হু হু করে বাড়ায় গত ১ অক্টোবর জেলা প্রশাসন কতৃক শহরের বনরূপা,তবলছড়ি,রিজার্ভ বাজার এলাকায় ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করা হয়।ভ্রাম্যমান আদালতে শহরের প্রায় সকল পেঁয়াজ ব্যবসায়ীদের কত টাকা কেনা হয়েছে তার রশিদ দেখে বিক্রেতাদের কেজিতে ১ থেকে ২ টাকা লাভে বিক্রি করার জন্য সতর্ক করা হয়।

দায়িত্বপ্রাপ্ত  ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জানান,ভারত পেয়াজ রপ্তানি বন্ধ করায় পেঁয়াজের দাম বৃদ্ধি পাচ্ছে।পেঁয়াজের দাম স্বাভাবিক রাখতে নিয়মিত ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করা হচ্ছে।এবং এই অভিযান অব্যাহত থাকবে।