আজ মহাসপ্তমীঃ দেবী দূর্গার পিতৃগৃহে প্রবেশের দিন

॥ আলমগীর মানিক ॥

আজ মহাসপ্তমী৷ শাস্ত্রমতে পুজোর শুরু৷ সপরিবারের মা দূর্গার পিতৃগৃহে প্রবেশের দিন৷ দেবীর নবপত্রিকাস্নান ও প্রাণ প্রতিষ্ঠা দিয়ে দিনের মুখ্য আচার শুরু হয়েছে৷ ভোর হতেই শুরু হয় যায় নবপত্রিকা স্নান৷ একে একে হয়েছে মহাস্নান, অষ্ট কলস স্নান,
আবাহন, চক্ষুদান, প্রাণ প্রতিষ্ঠা৷ তারপর পুরোহিতের মন্ত্রোচ্চারণ৷ ঢাকের আওয়াজ৷ আশ্বিনী বাতাসে পাওয়া যাচ্ছে পুজো সূচনার বার্তা৷ সার্বজনীয় এই পূজা সনাতন সম্প্রদায়ের হলেও সকল সম্প্রদায়ের মানুষের মাঝে উৎসবের আমেজ ছড়িয়ে পড়েছে। মন্দিরে মন্দিরে দেবী দর্শন করবে পাহাড়ী বাঙ্গালী, হিন্দু, মুসলিম, বৌদ্ধ, খ্রীষ্টান নির্বিশেষে সকল সম্প্রদায়ের মানুষজন। গতকাল মহা ষষ্ঠী পূজার মধ্যে দিয়ে রাঙামাটির ৪১ টি পুজা মন্ডপে শুরু হয়েছে শারদীয়া দূর্গোৎসব।

গতকাল সন্ধ্যায় রাঙামাটির অন্যতম প্রাচীন মন্ডপ শ্রী-শ্রী রক্ষা কালী মন্দিরে মায়ের অকাল বোধন থিমের উদ্বোধন করা হয়েছে। রাঙামাটি জেলা পরিষদ সদস্য হাজী মুছা মাতব্বর অকাল বোধনের উদ্বোধন করেন। এ সময় রাঙামাটি সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শহীদুজ্জামান মহসিন রোমান, রাঙামাটি জেলা পূজা উদযাপন পরিষদ সভাপতি বাদল চন্দ্র দে, সাধারণ সম্পাদক স্বপন কান্তি দে, পূজা উদযাপন পরিষদ রাঙামাটি সভাপতি অমর কুমার দে’সহ পূজা কমিটির নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

এবছর রাঙামাটি জেলার শহরে ১৪টি পূজা মন্ডপে পূজা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। বাঘাইছড়ি উপজেলায় ৪টি, লংগদু উপজেলায় ৪টি, কাপ্তাই উপজেলায় ৭টি, কাউখালী উপজেলায় ৪টি, রাজস্থলী উপজেলায় ৩টি, বরকল উপজেলায় ২টি এবং জুরাছড়ি, বিলাইছড়ি, নানিয়ারচর উপজেলায় ১টি করে পূজা অনুষ্ঠিত হচ্ছে।