ব্রেকিং নিউজ

তপোবন অরণ্য কুটিরে প্রবারণা পূর্ণিমা অনুষ্ঠিত

॥ নিজস্ব প্রতিবেদক ॥

রাঙ্গামাটির জেলার বালুখালী ইউনিয়নের কাইন্দ্যা মরিচ্যাবিল এলাকার অন্যতম রাজবন বিহারের শাখা বিহার তপোবন অরণ্য কুটিরে প্রবারণানুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে। ১১ অক্টোবর ( শুক্রবার) সকাল থেকে শুরু হয় বিভিন্ন দানানুষ্ঠান। দূর-দূরান্ত থেকে সমবেত হয় হাজারো পুণ্যার্থীর ঢল।

অনুষ্ঠানের শুরুতেই ভিক্ষু সংঘকে ফুলের তোরা দিয়ে বরণ করে নেওয়া হয়। অনুষ্ঠানে বুদ্ধমুর্তি দান, সংঘদান,অষ্টপরিস্কার দান, হাজার প্রদীপ দান,কল্পতরুদান, চীবর দান সহ নানা বিধ দান অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে পঞ্চশীল পাঠ করেন জলি চাকমা। মুন চাকমার অনুষ্ঠান পরিচালনার মধ্যে দিয়ে স্বাগত বক্তব্য রাখেন জেলা যুগ্ম জজ দীপেন দেওয়ান, ৬ নং বালুখালী ইউপি চেয়ারম্যান বিজয়গিরি চাকমা, এ্যাডভোকেট রাজিব চাকমাসহ অন্যান্য প্রমূখ।

অনুষ্ঠানে ধর্ম দেশনা দেন রাঙ্গামাটি রাজবন বিহার অধ্যক্ষ প্রজ্ঞালঙ্কার মহাস্থবির, তপোবন অরণ্য কুটিরের অধ্যক্ষ জিনপ্রিয় মহাস্থবির ও জুরাছড়ি সুবলং শাখা বনবিহারের অধ্যক্ষ বুদ্ধশ্রী মহাস্থবিরসহ অন্যান্য প্রমূখ। অনুষ্ঠানের শেষে শেষে নারী-পুরুষ দু’ভাগে ভাগ করে প্রবারণা অধিস্তান করা হয়। অতীতের সমস্ত ভুল গুলো স্বীকার পূর্বক ভিক্ষু সংঘের নিকট ক্ষমা প্রার্থনা করেন পুণ্যার্থীরা।

প্রবারণা পূর্ণিমা বা আশ্বিনী পূর্ণিমা বৌদ্ধদের কাছে এক অবিস্মরণীয় দিন। প্রবারণা বৌদ্ধ ধর্মীয় অনুশাসনের অন্যতম এক ধর্মীয় উৎসব যাকে আত্মঅন্বেষণ ও আত্মসমর্পনের তিথি বলা যায়। আবার এই দিনে পূর্ণাঙ্গ অভিধর্ম দেশনা সমাপ্ত হওয়ায় এই দিবসকে অভিধর্ম দিবসও বলা হয়।