বিলাইছড়িতে পাহাড়ি জেলের মরদেহ উদ্ধার!

॥ বিলাইছড়ি প্রতিনিধি ॥

রাঙামাটির বিলাইছড়িতে আদর সেন চাকমা (চিত্ত) নামে এক জেলের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। সোমবার (১৪ অক্টোবর) রাইখ্যাং নদীর পাশের বিল থেকে এ মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

নিহত আদর ১নং বিলাইছড়ি ইউপির ধুপ্যাচর গ্রামের বাসিন্দা মৃত. গাবী চাকমার ছেলে। সে বোটচালক নিত্যরঞ্জন চাকমার (গুত্যে) বড় ভাই।

বিলাইছড়ি থানার পরিদর্শক মাহবুব সংবাদমাধ্যমকে জানান, পানিতে একটি মৃতদেহ ভাসার খবর শুনে আমরা ঘটনাস্থলে আসি। আসার পরে ধুপ্যাচর গ্রামের কয়েকজন লোক নিয়ে বোটে করে ব্রিজ থেকে আনুমানিক তিনশ গজ দূরে বিলের মাঝখানে মাথার দিকটা ভাসমান অবস্থায় পেয়েছি। এবং পরে মৃতদেহটি উদ্ধার করা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, প্রাথমিক অবস্থায় শরীরে বাহ্যিক কোনো আঘাতের চিহ্ন দেখা যায়নি।

নিহতের ছোট ভাই নিত্যরঞ্জন চাকমা সংবাদমাধ্যমকে জানান, গ্রামের কয়েকজন লোক আমার ভাইয়ের নৌকাটা ভাসতে দেখে আমাকে খবর দেয়। পরে আমি স্থানীয় কার্বারি জগৎজ্যোতি চাকমাকে জানালে সে খুঁজে দেখার জন্য বলে। এবং আমি একটি নৌকা নিয়ে বিলের মাঝখানে গিয়ে ভাসমান অবস্থায় ভাইয়ের মৃতদেহ খুঁজে পায়।

পরে থানায় খবর দিলে, পুলিশ এসে লোকজনের সাহায্যে মৃতদেহটি উদ্ধার করে নিয়ে আসে। তিনি আরও বলেন, আমার ভাইয়ের মৃগীরোগ ছিল।

বিলাইছড়ি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা পারভেজ আলী সংবাদমাধ্যমকে জানান, নিহত ব্যক্তির পরিবারের দেওয়া বক্তব্যমতে আনুমানিক সকাল সাড়ে ৮টার দিকে সে মাছ ধরার জন্য নদীতে গেলে পরে আনুমানিক সকাল সাড়ে ১১টার দিকে তারা দেখে যে নৌকাটা আছে কিন্তু লোকটি নেই।

পরে খোঁজাখুজি করে মৃতদেহটি ভাসতে দেখে আনুমানিক ১২টার দিকে ধুপ্যাচর গ্রামের মুরুব্বি সাথোয়াই মার্মা আমাকে ফোন করে বিষয়টি জানান। এবং আমি সঙ্গে সঙ্গে পুলিশ পাঠিয়ে মৃতদেহটি উদ্ধার করি।

তিনি আরও জানান, এ বিষয়ে বিলাইছড়ি থানায় একটি অপমৃত্য মামলা করা হয়েছে। মঙ্গলবার সকালে ময়নাতদন্ত শেষে মরদেহটি আমরা পরিবারের কাছে হস্তান্তর করব।