পাহাড়ে ভান্তেদের জিম্মি করে কিছু বিহারে অস্ত্রধারি সন্ত্রাসীরা অবস্থান করছে:এমপি দীপংকর(ভিডিও)

আলমগীর মানিক,রাজস্থলী থেকে ফিরে::

সাম্প্রতিক সময়ে পার্বত্য চট্টগ্রামের দুর্গম এলাকাগুলোর কিছু কিছু বৌদ্ধ বিহারগুলোতে পাহাড়ের সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা ভান্তেদের পবিত্র রং বস্ত্র পড়ে ছদ্মবেশে অবস্থান করছে এবং অস্ত্রের মুখে শ্রদ্ধাভাজন ভান্তেদের জিম্মি করে রাখছে বলে মন্তব্য করেছেন জাতীয় সংসদের ২৯৯ আসনের সংসদ সদস্য সাবেক প্রতিমন্ত্রী দীপংকর তালুকদার।

শনিবার রাঙামাটির রাজস্থলী উপজেলা আওয়ামীলীগের ত্রি-বার্ষিকী সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন তিনি। এসময় জনাব তালুকদার আরো বলেন, ইদানিং উপদ্রব দেখা দিয়েছে যে, পার্বত্য চট্টগ্রামের রিমোট এরিয়ায় ভান্তেদের রং কাপড় পরিধান করে কিছু কিছু বিহারে সন্ত্রাসীরা অবস্থান করে অবৈধ অস্ত্র বহন করে চলেছে।

বিষয়টি যেকোনো বৌদ্ধধর্মাবলম্বী লোকজন অথবা শ্রদ্ধাভাজন ভান্তেরা কেউই পছন্দ না করলেও অস্ত্রের মুখে শীলদান ভান্তেদের জিম্মি করে রাখছে সন্ত্রাসীরা। এই ধরনের অবৈধ অস্ত্রধারি সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে উপাসক-উপাসিকা,দায়ক-দায়িকাসহ স্থানীয় বাসিন্দাদের নিয়ে জনমত গড়ে তোলার আহবানও জানিয়েছেন সংসদ সদস্য দীপংকর তালুকদার।

পাহাড়ের মানুষের উপর যারা অত্যাচার নির্যাতন চালাচ্ছে তাদের দিন শেষ হয়ে এসেছে। তাদের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ ভাবে যদি এগিয়ে আসা যায় তাহলে পাহাড়ের শান্তি ও উন্নয়ন দুটোই সম্ভব বলেও বক্তব্যে বলেছেন মি: তালুকদার।

উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান উবাচ মারমার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি অংচাপ্রু মারমা, সাধারণ সম্পাদক হাজী মুছা মাতব্বর, রাঙামাটি প্রেসক্লাবের সভাপতি সাখাওয়াৎ হোসেন রুবেল, সাংগঠনিক সম্পাদক ও কাপ্তাই উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মফিজুল হক, জেলা আওয়ামীলীগের দপ্তর সম্পাদক রফিক আহম্মদ তালুকদারসহ উপজেলা আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীরা বক্তব্য রাখেন।

অনুষ্ঠানের প্রথম পর্বের সভা শেষে উবাচ মারমাকে সভাপতি, পুচিংমং মারমারকে সাধারণ সম্পাদক করে উপজেলা আওয়ামীলীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন শেষ হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে সংসদ সদস্য দীপংকর তালুকদার আরো বলেন, একটা সময়ে আমরা রাজস্থলীতে চা খাওয়ানোর মতো কোনো লোককে পাওয়া যেত না। আতঙ্ক আর ভয়ের কারনে কেউ চা পর্যন্ত খেতে চাইতোনা। সেই আতঙ্ক-ভয় কি এখনো কমেছে এমন প্রশ্ন তুলে এমপি দীপংকর তালুকদার বলেন, এখনো পর্যন্ত আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীদের টার্গেট করে বেছে বেছে মেরে ফেলা হচ্ছে।

নেতাকর্মীদের হুমকি দিয়ে জানিয়ে দেওয়া হচ্ছে তোমরা আওয়ামীলীগের রাজনীতি করতে পারবা না। এখনো নেতাকর্মীদের বলা হচ্ছে যে, আওয়ামীলীগ থেকে তোমরা পদত্যাগ করো। মিষ্টার দীপংকর বলেন, সন্ত্রাসীদের এই ধরনের উগ্রবাদী আচনের অন্যতম কারন হলো, একমাত্র আওয়ামীলীগ-ই সারাদেশের ন্যায় পার্বত্য চট্টগ্রামেও অত্যন্ত দৃঢ় ভিত্তি তৈরি করতে পেরেছে।

পার্বত্য চট্টগ্রামের মানুষের দুঃখ-কষ্ট লাঘবে এখানে জননেত্রী শেখ হাসিনা কর্তৃক ঐতিহাসিক শান্তিচুক্তি সম্পাদিত হয়েছে। যার ফলশ্রুতিতে এখানকার মানুষের মাঝে আওয়ামীলীগের প্রতি একটি আস্থা, আবেগ, অনুভূতির জায়গা তৈরি হয়েছে। পাহাড়ের মানুষ বিশ্বাস করে একমাত্র আওয়ামীলীগের দ্বারাই পাহাড়ে শান্তিপূর্ন সহাবস্থান সম্ভব।

এ কারনেই আওয়ামীলীগকে কেন পাহাড়ের আপামর মানুষ ভালোবাসে সেই জন্য আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীদের মারধর থেকে শুরু করে খুন, অপহরণ করতে হবে? এবং এই বিশ্বাস থেকেই পার্বত্য চট্টগ্রামের অবৈধ অস্ত্রধারি সন্ত্রাসীরা আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীদের বেছে বেছে হত্যা করার মিশনে নেমেছে।

CHT Armed terrorists in Bihar holding hostage

পাহাড়ে ভান্তেদের জিম্মি করে কিছু বিহারে অস্ত্রধারি সন্ত্রাসীরা অবস্থান করছে:এমপি দীপংকর(ভিডিও)http://www.chttimes24.com/?p=70524&preview=true

Posted by ChtTimes24.com on Saturday, 19 October 2019