পাহাড়ে শিক্ষা ব্যবস্থার মান্নোয়নে রাঙামাটির অর্ধশত প্রা:শিক্ষকের ডেপুটেশন বাতিল!

॥ আলমগীর মানিক ॥

পার্বত্য জেলা রাঙামাটির প্রাথমিক শিক্ষা বিদ্যালয়গুলোতে শিক্ষক স্বল্পতাসহ নানামুখি সমস্যা মোকাবেলায় জেলার শিক্ষার ক্ষেত্রে সুষম বন্টন নিশ্চিতে জেলার অর্ধশত প্রাইমারি শিক্ষকের ডেপুটেশন বাতিল করেছে রাঙামাটির প্রাথমিক শিক্ষা বিভাগ কর্তৃপক্ষ। এরআগে শিক্ষা বিভাগের তথাকথিত এই প্রেষণ বানিজ্য নিয়ে জেলার সর্বোচ্চ শৃঙ্খলা সভায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন খোদ জেলা প্রশাসকসহ অত্রাঞ্চলের সুশীল সমাজের প্রতিনিধিবৃন্দ।

বিষয়টি নিয়ে ইতিমধ্যেই রাঙামাটির অন্তত অর্ধশত প্রাথমিক শিক্ষকের ডেপুটেশন বাতিল করে অবিলম্বে প্রেষণ পূর্ববর্তি কর্মস্থলে যোগদানের আদেশ জারি করেছে প্রাথমিক শিক্ষা বিভাগ। জেলা পরিষদ চেয়ারম্যানের নির্দেশনা রয়েছে জানিয়ে প্রেষণ বাতিল করা এসব শিক্ষক ও তাদের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোর তালিকা হলো: বামের মহালছড়ি স:প্রা: বিদ্যালয়-বরকল থেকে প্রেষণ বাতিল করে সহ:শিক্ষক মোঃ জুয়েল হোসেনকে নিজ কর্মস্থল ছোট হরিণা স:প্রা: বিদ্যালয়ে যোগদানের আদেশ জারি করা হয়েছে।

এছাড়াও সহ:শিক্ষক বাপ্পী তঞ্চঙ্গ্যাকে রাজস্থলীর আমছড়া স:প্রা: বিদ্যালয় থেকে একই উপজেলার হাজী পাড়া স:প্রা: বিদ্যালয়ে, সহ:শিক্ষক মোঃ আবুল কাশেমকে তালুকদার পাড়া স:প্রা: বিদ্যালয়ে, সহ:শিক্ষক মোঃ মাসুদ রানাকে লংগদু পেটাইন্যামা ছড়া স:প্রা: বিদ্যালয় থেকে উগলছড়ি মহাজনপাড়া স:প্রা: বিদ্যালয়ে, সহ:শিক্ষক জামাল উদ্দিনকে হাজী পাড়া স:প্রা: বিদ্যালয় থেকে লংগদু পাড়া স:প্রা: বিদ্যালয়ে, সহ:শিক্ষক উক্যজান মারমাকে কাউখালীর ডাবুয়া কেপি চৌধুরী স:প্রা: বিদ্যালয় থেকে মনাইপাড়া স:প্রা: বিদ্যালয়ে, বনরূপা মডেল স:প্রা: বিদ্যালয়ে প্রেষণে কর্মরত সহ:শিক্ষিকা হাসিনা কার্নিজ রোকসানা ও বাঘাইছড়ির আয়নামতি আজিজ পাড়া স:প্রা: বিদ্যালয়ের সহ:শিক্ষিকা তাসলিমা আক্তারকে বাঘাইছড়ির মুসলিম ব্লক স:প্রা: বিদ্যালয়ে, জুড়াছড়ি উপজেলার আদেইবাপছড়া স:প্রা: বিদ্যালয়ের সহ:শিক্ষক আনন্দ কুমার চাকমাকে সদরের সাপছড়ি স:প্রা: বিদ্যালয়ে, লংগদু’র চাইল্যাতলী স:প্রা: বিদ্যালয়ের সহ:শিক্ষক সুজিত চাকমা শহরের মোনঘর স:প্রা:

বিদ্যালয়ে, সদরের চন্দ্রহরি স:প্রা: বিদ্যালয়ের সহ:শিক্ষক সুদর্শণ চাকমাকে চেগেইয়াছড়ি স:প্রা: বিদ্যালয়ে, যগোনাছড়ি স:প্রা: বিদ্যালয়ের সহ:শিক্ষক কামিনী রঞ্জন চাকমাকে পানছড়ি দয়াময় স:প্রা: বিদ্যালয়ে, জগৎলাল চাকমাকে জীবতলী হেডম্যান পাড়া স:প্রা: বিদ্যালয়ে, সুরেশ চাকমাকে গরগষ্যাছড়ি স:প্রা: বিদ্যালয়ে, কাপ্তাইয়ের পরিমলচন্দ্র তালুকদার পাড়া স:প্রা: বিদ্যালয়ে প্রেষণে কর্মরত সহ:শিক্ষক মধুমঙ্গল তঞ্চঙ্গ্যাকে ব্যাপ্টিষ্ট মিশন স:প্রা: বিদ্যালয়ে, মোঃ ইসমাঈল হোসেনকে কালামাইশ্যামুখ স:প্রা: বিদ্যালয়ে, রিপন তঞ্চঙ্গ্যাকে নারানগিরি বড়পাড়া স:প্রা: বিদ্যালয়ে,

সদর উপজেলার ক্যারেটকাটা অমর স্মৃতি স:প্রা: বিদ্যালয়ের শিক্ষক স্বরবিন্দু চাকমাকে প্রেষণ বাতিল করে হাজাছড়ি (মারমা পাড়া) স:প্রাঃ বিদ্যালয়ে, সদরের স্বর্নটিলা স:প্রা: বিদ্যালয়ে কর্মরত সহ:শিক্ষক জান্নাতুল ফেরদৌসকে প্রেষণ বাতিল করে নিজ কর্মস্থল বাঘাইছড়িস্থ বটতলী স:প্রা: বিদ্যালয়ে, কাউখালীর লাঠিছড়া স:প্রা: বিদ্যালয়ের সহ:শিক্ষক জিনাত ফাতেমাকে একই উপজেলাধীন কলমপতি স:প্রা: বিদ্যালয়ে, সদর উপজেলাধীন যোগেন্দ্রদেওয়ান পাড়া স:প্রা: বিদ্যালয়ের সহ:শিক্ষক সাবানা চাকমাকে বড়মইন স:প্রা: বিদ্যালয়ে, ভেদভেদী স:প্রা: বিদ্যালয়ের সহ:শিক্ষক সুপর্ণা তঞ্চঙ্গ্যাকে বিলাইছড়িস্থ ফারুয়া স:প্রা: বিদ্যালয়ে, বলপিয়ে আদম স:প্রা: বিদ্যালয়ের সহ:শিক্ষিকা রীনা চাকমাকে লংগদু উপজেলাধীন নলুয়া বড়কলক স:প্রা: বিদ্যালয়ে, বিলাইছড়ি পাড়া স:প্রা:

বিদ্যালয়ের শিক্ষক শিলু রানী সাহাকে বরকলের উজ্জ্যাংছড়ি স:প্রা: বিদ্যালয়ে, আসামবস্তি স:প্রা: বিদ্যালয়ের সহঃশিক্ষিকা রীতা মারমাকে বরকলের সুবান স:প্রা: বিদ্যালয়ে, বিলাইছড়ি পাড়া স:প্রা: বিদ্যালয়ের সহ:শিক্ষক জোনাকী ত্রিপুরাকে আগের কর্মস্থল ইয়ং¤্রংপাড়া স:প্রা: বিদ্যালয়ে, সদরের গোধূলী আমানতবাগ স:প্রা: বিদ্যালয়ের সহ:শিক্ষক সুমিত্রা চৌধুরীকে পুরানপাড়া স:প্রা: বিদ্যালয়ে, বনরূপা মডেল স:প্রা: বিদ্যালয়ে প্রেষণে কর্মরত সহ:শিক্ষিকা খুশী নাহারকে গোলাছড়ি স:প্রা: বিদ্যালয়ে, সদরের কাঠাঁলতলী স:প্রা: বিদ্যালয়ে প্রেষণে কর্মরত সহ:শিক্ষক মোঃ সেলিম আহমেদকে লালমোহন কার্বারী পাড়া স:প্রা: বিদ্যালয়ে, ভেদভেদী স:প্রা: বিদ্যালয়ের সহ:শিক্ষিকা শাহনাজ আক্তারকে হাজাছড়া স:প্রা: বিদ্যালয়ে, শাহ স:প্রা: বিদ্যালয়ের সহ:শিক্ষক রাজু বড়ুয়াকে সাপমারা স:প্রা: বিদ্যালয়ে, রাজা নলিনাক্ষরায় স:প্রা: বিদ্যালয়ের সহ:শিক্ষিকা মিতা চাকমাকে বড়াদম স:প্রা: বিদ্যালয়ে, কাউখালী উপজেলা সদরের পোয়াপাড়া স:প্রা: বিদ্যালয়ের সহ:শিক্ষিকা

নাজমা বেগমকে একই উপজেলার মাঝিপাড়া স:প্রা: বিদ্যালয়ে, বরকল উপজেলাধীন বরকল মডেল স: প্রা: বিদ্যালয়ের সহ: শিক্ষিকা সুপর্না সেন’কে ভুষণছড়া স:প্রা: বিদ্যালয়ে, লংগদু উপজেলাধীন ডানের লংগদু স:প্রা: বিদ্যালয়ের শিক্ষিকা ভূমিকা চাকমাকে ইয়ারিংছড়ি স:প্রা: বিদ্যালয়ে, ফোরেরমুখ স:প্রা: বিদ্যালয়ের শিক্ষক মহতি চাকমাকে পেটাইন্যামাছড়া স:প্রা: বিদ্যালয়ে, বাঘাইছড়ি উপজেলাধীন মুসলিম ব্লক স:প্রা: বিদ্যালয়ের শিক্ষিকা সোনিয়া আক্তারকে একই উপজেলাধীন খেদারমারা স:প্রা: বিদ্যালয়ে, বঙ্গলতলী স:প্রা: বিদ্যালয়ের শিক্ষক বাবুল কান্তি চাকমাকে দক্ষিণ বঙ্গলতলী স:প্রা: বিদ্যালয়ে, কাচালং মডেল স:প্রা: বিদ্যালয়ের শিক্ষিকা ইতি চাকমাকে হাগলাছড়া স:প্রা: বিদ্যালয়ে, কাপ্তাই উপজেলাধীন শিলছড়ি স:প্রা: বিদ্যালয়ের সহ:শিক্ষক মোঃ মিজানুর রহমান ছিদ্দিকীকে পূর্ব কোদালা স:প্রা: বিদ্যালয়ে এবং বীরশ্রেষ্ঠ মুন্সী আব্দুর রউফ স:প্রা: বিদ্যালয়ে প্রেষণে কর্মরত থাকা সহ:শিক্ষিকা শামসুল্লা বাজেগা বেগমকে সদরের স্বর্ণটিলা স:প্রা: বিদ্যালয়ে যোগদানের অফিসিয়ালী আদেশ জারি করা হয়। রাঙামাটির প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মোঃ খোরশেদ আলম কর্তৃক স্বাক্ষরিত আদেশপত্রে উপরোক্ত নির্দেশনাবলি জারি করা হয়।

খোঁজনিয়ে জানাগেছে, রাঙামাটির দুর্গম এলাকার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোতে শিক্ষকদের অনীহার কারণে নানা মহলের তদবির করে প্রেষণ বা ডেপুটেশন নেয় শিক্ষকরা। সরকারি নিয়মে তিন মাস থেকে এক বছর মেয়াদ ভিত্তিতে শিক্ষকদের প্রেষণ দেয়ার নিয়ম থাকলেও সেই নিয়ম এখন কাগুজে নিয়মে পরিণত হয়েছে। নিয়মনীতির তোয়াক্কা না করে বছরের পর বছর ধরে ডেপুটেশনে শিক্ষকতা করছেন নিজেদের পছন্দসই বিদ্যালয়ে। প্রতিবছরই বছরের বিভিন্ন সময় তদবির করে ডেপুটেশন বা প্রেষণে বদলি হয়ে যায় সুবিধাবাজ কিছু শিক্ষক। ফলশ্রুতিতে অধিকাংশ বিদ্যালয়গুলোতে চরম সংকট তৈরি হয়। সংশ্লিষ্ট বিভাগের রোষানলে পড়ার আশঙ্কায় এ বাণিজ্য নিয়ে কেউ প্রকাশ্যে মুখ খুলতে সাহস পায় না।

এসময় রাঙামাটির জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার খোরশেদ আলম বলেছেন, পাহাড়ের বিভিন্ন বিদ্যালয়ের শিক্ষক স্বল্পতার কারনে অনেক আগেই জেলা কিছু কিছু শিক্ষকদের ডেপুটেশনের দেওয়া হয়েছিলো। বর্তমান সময়ে রাঙামাটি জেলার প্রাথমিক শিক্ষার অবস্থা বিবেচনায় এসব ডেপুটেশন বাতিল করা একান্ত প্রয়োজন। অন্যথায় শিক্ষাক্ষেত্রে সুষম বন্টন নিশ্চিত হয়না। বিষয়টি বিচেনায় নিয়ে রাঙামাটির প্রাথমিক শিক্ষার গুনগত মান বৃদ্ধির স্বার্থেই শিক্ষকদের ডেপুটেশনগুলো বাতিল করে উক্ত শিক্ষকদের পূর্বের কর্মস্থলে ফিরিয়ে আনা হয়েছে। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমাদের আদেশ জারির পর কেউই আর বাইরে অবস্থান করার সুযোগ নাই, ইতিমধ্যেই সকলে চলে এসেছে বলে আমরা নিশ্চিত হয়েছি। কেউ যদি না আসে তাহলে বিধিসম্মতভাবেই তাদের বেতন-ভাতা স্থগিত হয়ে যাবে বলেও জানিয়েছেন প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা খোরশেদ আলম।