“রাষ্ট্রকে দূর্বল ভাবা ঠিক হবেনা, শেখ হাসিনা দূর্বল নন”

॥ জুরাছড়ি প্রতিনিধি ॥

আমরা স্থানীয় রাজনৈতিক দলকে অশ্রদ্ধা করিনা, এদের বর্তমানে শুভ বুদ্ধি উদয় হওয়াতে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন জেলা আওয়ামিলীগের যুগ্ম সাধরণ সম্পাদক সন্তোষ কুমার চাকমা।বিগত সময়ে রাষ্ট্রকে দূর্বল ভাবা হয়েছে। রাষ্ট্রকে দূর্বল ভাবা ঠিক হবেনা, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অত্যন্ত শক্তিশালী। পার্বত্য চট্রগ্রামে ইতিহাসের এই সর্ব প্রথম গেলো ১৬-১৭ তারিখে বিশেষ আইন শৃংখলা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে বলে উল্লেখ করেন। অভয় প্রকাশ চাকমা বলেন,বর্তমানে জুরাছড়ি উপজেলায় উন্নয়ন অত্যন্ত সীমিত,এলাকার পরিবেশ পরিস্থিতি শান্তি বিরাজ করলে উন্নয়নের গতিশীল বাড়বে ।

প্রবর্তক চাকমা বলেন, বিগত সময়ে যে অশান্তির পরিবেশ ছিল,বর্তমানে সেই দুঃসময় আর নেই,এদের শুভ বুদ্ধি উদয় হচ্ছে! বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান সুরেশ কুমার চাকমা সকল রাজনৈতিক দলদের নিয়ে এলাকার শান্তি শৃংখলা স্থিতি বজায় রাখার জন্য বিগত ১০ সেপ্টেম্বর আলোচনায় বসেন। বর্তমানে পরিলক্ষিত হচ্ছে আমাদের অশান্তি দিন চলে গেছে,সুবাতাস বয়ে আসতেছে এজন্য চেয়ারম্যানকে ধন্য জানিয়েছেন উপজেলা আওয়ামিলীগের নেতৃবৃন্দ।

জ্ঞানেন্দু বিকাশ চাকমা জানান, বিগত ৫ ডিসেম্বর ২০১৭ সালে অরবিন্দু চাকমা হত্যা মধ্যেদিয়ে এলাকায় ত্রাস সৃষ্টি হয়েছিল। তখন থেকে আওয়ামিলীগের নেতাকর্মীরা পদত্যাগ করতে শুরু করেন। যে সমস্ত নেতাকর্মীরা পদত্যাগ পত্র জমা দিয়েছেন তা গৃহীত হয়নি বলে উপজেলা কমিটিকে জানিয়ে দিয়েছেন দীপংকর তালুকদার এমপি।

২১ অক্টোবর সোমবার ইউনিয়ন আওয়ামিলীগের সম্মেলনে সভাপতিত্ব করেন হৃদয় রঞ্জন চাকমা। সভা পরিচালনা করেন উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি জ্ঞানমিত্র চাকমা। সভায় বক্তব্য রাখেন চারু বিকাশ চাকমা, সিন্দু প্রিয় চাকমা, তপন দেসহ অঙ্গসংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

এতে জুরাছড়ি ইউনিয়নের সভাপতি হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন সিন্দু প্রিয় চাকমা,সাধরণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছেন মিন্টু চাকমা। ২নং বনযোগিছড়া ইউনিয়নে সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন কৃষ্ণ মোহন চাকমা,সাধরণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছেন উজ্জল চাকমা। ৩নং মৈদং ইউনিয়নে সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন বিরঙ্গ লাল চাকমা,সাধরণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছেন অরুন কান্তি চাকমা। ৪নং দুমদুম্যা ইউনিয়নে সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন সাধন চাকমা,সাধরণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছেন স্বপন চাকমা।