নিরাপদ সড়ক দিবসে রাঙামাটিতে র‌্যালী-আলোচনা সভা:পরিবহণ নেতৃবৃন্দের উপস্থিতি ছিলোনা

॥ শহিদুল ইসলাম হৃদয় ॥

জীবনের আগে জীবিকা নয় সড়ক দুর্ঘটনা আর নয় এই প্রতিপাদ্যে পার্বত্য জেলা রাঙামাটিতেও পালন করা হয়েছে জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস। দিবসটি পালনে জেলা প্রশাসনের সহযোগিতায় বিআরটিএ রাঙামাটি সার্কেল অফিসের আয়োজনে শহরে বর্ণাঢ্য র‌্যালী ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। মঙ্গলবার সকালে পৌরসভার সামনে থেকে বর্ণাঢ্য র‌্যালী বের করা হয়। র‌্যালীটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে আলোচনা সভায় মিলিত হয়। আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রাঙামাটির অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক এসএম শফি কামাল।

অতিরিক্ত জেলা মেজিস্টেট শিল্পী রাণী রায়ের সভাপতিত্বে উক্ত আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাঈন উদ্দিন সহ অন্যান্য দের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সড়ক বিভাগ নির্বাহী প্রকৌশলী ফারহীন রুখসানা, ট্রাফিক ইন্সপেক্টর মোহাম্মদ ইসমাই হোসেন, রাঙামাটি জেলা অটোরিক্সা চালক সমিতির সভাপতি পরেশ মজুমদার, নিরাপদ সড়ক চাই আন্দোলনের সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ সোলায়মান প্রমুখ।

আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন, অতিরিক্ত জোরে গাড়ি চালানো, প্রশিক্ষণ না থাকা, আইন কানুন না মানা, দুর্ঘটনার জন্যে আরেকটি অন্যতম কারণ যখন তখন ওভারটেক করা। অকাল মৃত্যু ও পঙ্গুত্ব ঠেকাতে হলে আমাদের সকলেরই উচিত সড়ক দূর্ঘটনার রোধে সচেতনতাবোধ সৃষ্টিতে কাজ করা।

এই লক্ষ্যে- ওভারটেকিং প্রবণতা বন্ধ করতে হবে, ড্রাইভার গাড়ি চালনার সময় মোবাইল ফোন ব্যবহার করতে পারবে না, ট্রাফিক পুলিশ যেন যথাযথ দায়িত্ব পালন করে, গাড়ির ফিটনেস যেন ঠিক থাকে তা লক্ষ্য রাখতে হবে, বাসের ছাদে এবং ট্রাকে অতিরিক্ত মালামাল বা লোক ওঠানো যাবে না এবং নেশাজাতীয় দ্রব্য পান করা থেকে চালকদের বিরত রাখাসহ দ্রুতগতিতে মোটর সাইকেল চালনা বন্ধে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করার উপর গুরুত্বারোপ করেন বক্তারা।

এদিকে জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবসটি পালনের এই আয়োজনে রাঙামাটির পরিবহন সংগঠন বাস-ট্রাক মালিক সমিতির নেতৃবৃন্দ ও তাদের সংগঠনের কোনো সদস্যের উপস্থিতি না থাকায় আলোচকরা সমালোচনা করেন।