ঈদে মিলাদুন্নবী (সঃ) উপলক্ষে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের আলোচনা সভা

॥ ইকবাল হোসেন ॥

ইসলামিক ফাউন্ডেশন রাঙামাটি জেলা কার্যালয়ের উদ্যোগে পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (সঃ) উদযাপন উপলক্ষে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাঙামাটি পার্বত্য জেলার জেলা প্রশাসক একেএম মামানুর রশিদ বলেন মহানবীর আদর্শকে মানুষের সকল মাঝে ছড়িয়ে দিতে হবে।

পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (সঃ) ১৪৪১ হিজরী উদযাপন উপলক্ষে ইসলামিক ফাউন্ডেশন রাঙামাটি জেলা কার্যলয়ের উদ্যোগে অন্যান্য বছরের ন্যায় সবীনা খতম, মিলাদ মাহফিলঅ, আলোচনা সভা ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে।
রবিবার (১০ নভেম্বর ২০১৯ খ্রিষ্টাব্দ) সকালে রাঙামাটি ইসলামিক ফাউন্ডেশন কার্যালয় মিলনায়তনে আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রাঙামাটি পার্বত্য জেলার জেলা প্রশাসক একেএম মামুনুর রশিদ। সভায় সভাপতিত্ব করেন রাঙামাটিন ইসলামিক ফাউন্ডেশন’র উপ-পরিচালক মুহাম্মদ ইকবাল বাহার চৌধুরী। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রাঙামাটি জেলা আওয়ামীলীগ’র সহ-সভাপতি হাজী কামাল উদ্দীন, রাঙামাটি পার্বত্য জেলার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক নূরুল হুদা, রাঙামাটি সদর উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নাসরিন ইসলাম। আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় ইমাম সমিতি রাঙামাটি জেলা শাখার সভাপতি মাওলানা ক্বারী মুহাম্মদ ওসমান গনি চৌধুরী। স্বাগত বক্তব্য রাখেন রাঙামাটি ইসলামিক ফাউন্ডেশন’র ফিল্ড সুপারভাইজার মোহাম্মদ নূর। মিলাদ ও দোয়া পরিবেশন করেন আসামবস্তী জামে মসজিদের পেশ ইমাম মাওলানা রেচাউল করীম নঈমী। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন রাঙামাটি জেলা ইসলামিক ফাউন্ডেশন কার্যালয়ের ফিল্ড সুপারভাইজার মো. মুনির উদ্দীন।

আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাঙামাটির জেলা প্রশাসক একেএম মামুনুর রশিদ ঈদে মিলাদুন্নবীর তাৎপর্য সম্পর্কে গুরত্বারোপ করে বলেন আল্লাহ রাব্বুল আল আমীন বলেছেন আমরা উম্মতেরা যাতে মহানবীর জীবনের আদর্শকে মেনে আমাদের জীবন পরিচালনা করি তাহলেই আমরা ইহকাল এবং পরকালে শান্তি লাভ করতে পারব। তিনি বলেন যেহেতু ঈদ মানে যেহেতু আনন্দ তাই আমরা ঈদে মিদাদুন্নবী উপলক্ষে শুধু মিছিল,আলোচনা সভা বা ইসলামিক সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্য সীমাবদ্ধ না থেকে রসূল এর সুন্নত সমূহ আমাদের ব্যক্তিগত জীবনে পালন করি তাহলেই এই দিবসটি পালন করা সার্থক হবে।

আলোচনা সভার পর ইসলামিক ফাউন্ডেশন’র প্রতিষ্ঠাতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ শাহাদাৎ বরণকারী তার পরিবারের সদস্যবর্গ ও মুসলিম উম্মার শান্তি কামনা করে মিলাদ ও দোয়া মোনাজাত করা হয়।
এরপর ইসলামিক ফাউন্ডেশন রাঙামাটি কার্যালয়ের উদ্যোগে অনুষ্ঠিত প্রতিযোগিতা সমূহে বিজয়ীদের হাতে উপস্থিত অতিথিবর্গ পুরস্কার তুলে দেন।
অনুষ্ঠান শেষে যাকাত ফান্ডের অর্থ থেকে প্রতি বছরের ন্যায় ১০ জন নওমুসলিম-কে চেক প্রদান, ইমাম মুয়াজ্জিন খল্যাণ ট্রাস্ট’র সদস্যদের থেকে ২০ (বিশ) জনকে সুদমুক্ত ঋণ ও ৭০ (সত্তর) জনকে এককালীন অনুদান বাবদ মোট ৬ লক্ষ ৯০ হাজার টাকা প্রদান করা হয়।