স্কুল ছাত্রদের উদ্ভাবনে মুগ্ধ ডিসি মামুনুর রশিদ!

॥ নূর হোসেন মামুন – কাপ্তাই ॥

চালক ও পথচারীর অসচেতনায় দিন দিন বাড়ছে সড়ক-রেলপথে প্রাণহানির ঘটনা। দূর্ঘটনা এড়াতে চিৎমরম উচ্চ বিদ্যালয়ের ৯ম শ্রেণীর মেধাবী ছাত্র মো. সাজ্জাতুল ইসলাম সিফাত উদ্ভাবন করেছে ‘স্মার্ট ট্রাফিক’ যন্ত্র ও কাপ্তাইয়ের নৌ বাহিনী স্কুলের ৯ম শ্রেণীর ছাত্র আজমাঈন ইশরাক, শাহরিয়ার রাহাত ও জাওয়াদ আল আহমদ উদ্ভাবন করেছে ‘অটোমেটিক বেরিয়ার গেইট এবং লেজার সিকিউরিটি সিস্টেম যন্ত্র’।

সড়কের চালকের অসতর্কতা, অসচেতনতা, বেপরোয়া বা অনিয়ন্ত্রিত গতিতে গাড়ি চালনা, ওভারটেকিং প্রবণতা, ত্রুটিপূর্ণ রাস্তা ইত্যাদি কারণ ঘটছে সড়ক দূর্ঘটনা। সবশেষ গত সোমবার ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবায় চট্টগ্রাম থেকে ঢাকাগামী তূর্ণা নিশীথা ও সিলেট থেকে চট্টগ্রামগামী উদয়ন এক্সপ্রেসের মুখোমুখি সংঘর্ষে ১৬ জন নিহত হয়েছে। এই মুহুর্তে তাদের এমন আবিস্কার নাড়া দিয়েছে সকলকে। সোমবার (১২ই নবেম্বর) ঐতিহ্যবাহী কাপ্তাই উচ্চ বিদ্যালয়ে আয়োজিত ‘বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি ক্লাব’ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থান করা হয় এমন যন্ত্র। যা দেখে আগত অতিথিরা মুদ্ধ ও বিষ্মিত হয়েছেন। কাপ্তাই উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা আশ্রাফ আহমেদ রাসেলের সভাপতিত্বে এসময় প্রধান অতিথি ছিলেন, রাঙামাটি জেলা প্রশাসক এ.কে.এম মামুনুর রশিদ।

কাপ্তাইয়ের নৌ বাহিনী স্কুলের ৯ম শ্রেণীর ছাত্র আজমাঈন ইশরাক, শাহরিয়ার রাহাত ও জাওয়াদ আল আহমদ বলেন, সড়কের মাঝ পথে বয়ে যাওয়া রেলপথ দিয়ে যখন ট্রেন আসবে তখনই কাজ করবে যন্ত্রটি। ট্রেনের চলাচল স্বাভাবিক রেখে সড়কে নিজ থেকেই সৃষ্টি করবে প্রতিরোধক। ফলে রেলপথ সংলগ্ন উক্ত সড়কের সকল যানবাহন রেলগাড়ী অতিক্রম না করা পর্যন্ত নিদিষ্ট সময় পর্যন্ত অপেক্ষা করিয়ে রাখবে। এতে প্রয়োজন হবেনা কোন জনবল।

অন্যদিকে সড়কের যানযট নিরোসন করা হলে কমবে সড়ক দূর্ঘটনা। সৃষ্টি হবে শৃংঙ্খলা। এমন মন্তব্য করে চিৎমরম উচ্চ বিদ্যালয়ের ৯ম শ্রেণীর মেধাবী ছাত্র মো. সাজ্জাতুল ইসলাম সিফাত বলেন, আমার উদ্ভাবিত ‘স্মার্ট ট্রাফিক’ যন্ত্রটি সড়কে ব্যবহারের করতে হবে। যন্ত্রটিতে একটি সেন্সর ও একটি ল্যাম্পপোষ্ট থাকবে। যা সড়কে স্থাপন করা হলে যন্ত্রটি অতিক্রম করা যানবাহনের পরিমাণ অনুমান করে সড়কের বিপরীতমুখী পরিবহণকে বিশেষ বার্তা দিবে যন্ত্রটি। ফলে সড়কের বিপরীতমুখী যানবাহন থামতে বাধ্য হবে। এই যন্ত্রটি ট্রাফিক বিভাগে কর্মরত পুলিশের কাজকে আরো বেশি বেগবান করবে বলে তার ধারণা।

তাদের এমন আবিস্কার প্রদর্শন করে মুদ্ধ হয়ে রাঙামাটি জেলা প্রশাসক এ.কে.এম মামুনুর রশিদ বলেছেন, দেশে সড়ক দূর্ঘটনার অন্যতম কারণ ওভারটেকিং প্রবণতা। তাই সঠিক নিয়ম মেনে সতর্কতার সঙ্গে ওভারটেক করা উচিত। ট্রাফিক আইন অমান্য করার কারণেও সড়ক দুর্ঘটনা ঘটছে। তিনি শিক্ষার্থীদের এমন আবিস্কারে মুগ্ধ হয়ে তাদের দীর্ঘায়ু কামনা করেছেন।

কাপ্তাই উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা নাদির আহমেদ চৌধুরী শিক্ষার্থীদের এমন আবিস্কারের প্রশংসা করে বলেন, কাপ্তাইয়ের শিক্ষার্থীরা পড়ালেখার পাশাপাশি বিজ্ঞান চর্চায় দাড়–ন মনযোগি যা আমাদের জন্য অত্যান্ত সুখের।

সড়ক দূর্ঘটনা রোধে সমন্বিত উদ্যোগের প্রয়োজন জানিয়ে কাপ্তাই উপজেলা চেয়ারম্যান মো. মফিজুল হক বলেন, সড়ক-মহাসড়কগুলোকে ডিজিটাল নজরদারির আওতায় মাধ্যমে আমাদের ট্রাফিক নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থা আরও উন্নত করা জরুরী হয়ে পড়েছে। সরকার, চালক, মালিক, শ্রমিক ও যাত্রী সবাইকে সতর্ক ও সচেতন থাকতে হবে- মনে রাখতে হবে, সময়ের চেয়ে জীবনের মূল্য অনেক বেশ।