উন্নয়নে বাধা প্রদানকারী হেডম্যান কার্বারিদের প্রত্যাহার করা উচিতঃ লেঃ কর্ণেল মাহমুদুল

॥ স্মৃতিবিন্দু – জুরাছড়ি ॥

নবাগত জোন কমান্ডার লেঃ কর্ণেল তানবির হোসেনের যোগদান ও বর্তমান জোন কমান্ডার লেঃ কর্ণেল মাহমুদুল হাসান বিদায় অনুষ্ঠান উপলক্ষে উপজেলার সকল গণ্যমান্য ব্যক্তি ও জনপ্রতিনিধিদের নিয়ে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় লেঃ কর্ণেল মাহমুদুল হাসান বলেন, উন্নয়নের পূর্বশর্ত হচ্ছে শান্তি শৃঙ্খলা তাই যারা উন্নয়ন মূলক কাজে বাধাগ্রস্থ করেন অল্পসময়ের জন্য সামান্য অসুবিধা হলেও এদেরকে প্রথাগত হেডম্যান কার্বারির পোস্ট থেকে প্রত্যাহার করা উচিত। তিনি স্বপ্ন দেখেন একদিন রাঙ্গামাটি জেলা সদর থেকে জুরাছড়ি উপজেলায় সরাসরি গাড়ী নিয়ে এখানকার জনগণ যাতায়াত করতে পারবে। এছাড়াও জুরাছড়ি উপজেলার প্রচুর পর্যটনের সম্ভাবনা রয়েছে আগামীতে যদি সুবলং শাখাবনবিহারে ১২৬ ফুট সিংহ শয্যা বুদ্ধমূর্তিটি নির্মাণ কাজ সমাপ্ত হলে তাহলে প্রচুর পর্যটকের সমাগম ঘটবে,তখন আরো বেশী অর্থনৈতিক আয়ের পথ সুগম হবে।

নবাগত জোন অধিনায়ক লেঃকর্ণেল তানবির হোসেন বলেন,যেভাবে বিদায়ী জোন কমান্ডার লেঃকর্ণেল মাহমুদুল হাসান জুরাছড়ির জনগণকে সার্বিক সহযোগিতা দিয়ে গেছেন এলাকার জনগণের সার্বিক সহযোগিতা পেয়েছেন,আশাকরি আমিও সেভাবে কাজ করে যাব। এজন্য প্রয়োজন এখানকার জনগণের সার্বিক সহযোগিতা ও ভালোবাসা।

উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান সুরেশ কুমার চাকমা বলেন,আদর্শ একুশের যারা জোন কমান্ডার নিয়োজিত ছিলেন,তাদের অবদান জুরাছড়িবাসী কখনো ভুলতে পারবেনা। বর্তমান বিদায়ী জোন কমান্ডার আমাদের একেবারে ঘরের পরিবারের সদস্যর মত,তিনি যে কোন সময় আমাদের সুখ দুখের পাশে ছিলেন, আমারা জুরাছড়ি উপজেলার বাসীর পক্ষ থেকে আদর্শ একুশের সকল সদস্যদের প্রতি মঙ্গলময় সাফাল্য কামনা করেন।

সভায় মেজর মাঝাহার আদনান এর অনুষ্ঠান পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন,জুরাছড়ি থানার অফিসার ইনচার্জ মাহমুদুল হাই,জুরাছড়ি সদর ইউপি চেয়ারম্যান ক্যানন চাকমা,বনযোগীছড়া ইউপি চেয়ারম্যান,সন্তোষ বিকাশ চাকমা,মৈদং ইউপি চেয়ারম্যান সাধনানন্দ চাকমা,রাঙ্গামাটি সদর উপজেলার বালুখালী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান বিজয়গিরি চাকমা,হেডম্যান মায়ানন্দ দেওয়ান প্রমূখ।

ক্যানন চাকমা বলেন,আমরা যদি কোন কাজ করার আগে সকলের সঙ্গে আলাপ আলোচনা নিয়ে করি তাহলে আমাদের কোন সমস্যা সৃষ্টি হবেনা,এজন্য প্রয়োজন সমন্বয়।তাই সকলের সমন্বিত্ব প্রচেষ্টায় জুরাছড়ি উপজেলাকে কিভাবে উন্নয়নের দিকে অগ্রসর করব এই মানসিকতা নিয়ে এলাকার শান্তি শৃঙ্খলা স্থিতি বজায় রাখার জন্য সকলের প্রতি অনুরোধ জ্ঞাপন করেন।আলোচনা সভা শেষে ঢেউটিন,ধানমারাই কলের মেশিন,গরীব শিক্ষার্থীদের আর্থিক অনুদান বিতরণ করা হয়।