আওয়ামী যোদ্ধা সাখাওয়াৎ হোসেন রুবেলের পরিচিতি

॥ নিজস্ব প্রতিবেদক ॥

২৫ নভেম্বর অনুষ্ঠিতব্য রাঙামাটি জেলা আওয়ামীলীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন ২০১৯ এর অন্যতম একজন সাধারণ সম্পাদক পদপ্রার্থী হলেন নব্বইয়ের স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলনের অন্যতম অগ্রসৈনিক সাখাওয়াৎ হোসেন রুবেল। তিনি সে সময় রাঙামাটি জেলা আওয়ামী যুবলীগের সভাপতি ও জেলা আওয়ামীলীগের দপ্তর সম্পাদক হিসেবে দীর্ঘদিন দায়িত্ব পালন করেন।

৭৫ এর ১৫ আগষ্ট জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান স্বপরিবারে হত্যাকান্ডের শিকার হলে এরপর পরই তিনি উচ্চ বিদ্যালয়ে পড়া অবস্থায়ই বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কর্মকান্ডে নিজেকে জড়িত করেন। তিনি ছাত্র জীবন থেকে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের একজন সক্রিয় কর্মী হিসেবে কাজ করেছেন। দলীয় কাজে পোষ্টার লেখা, চিকামারা এবং শ্লোগান দেওয়া সব কাজেই অগ্রণী ভূমিকা রেখেছেন। দলের পক্ষে এবং নেতৃবৃন্দের মুক্তির দাবীতে দেওয়াল লিখন লিখতে গিয়ে তিনি পুলিশ কর্তৃক আটক হয়ে হাজতবাসও করেন। এছাড়া নব্বই এর স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলন করতে গিয়ে পূর্ব থেকে আটক তৎকালীন রাঙামাটি জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক এবং বঙ্গবন্ধু হত্যার প্রতিবাদে অন্যতম প্রতিরোধ যোদ্ধা দীপংকর তালুকদারসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দের এর সাথে কারাবরণ করেন।

এরপূর্বে তিনি বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সভাপতি হিসেবে পূর্ণমেয়াদে (১৯৮১খ্রিঃ – ১৯৮৫খ্রিঃ) দায়িত্ব পালন করেন। তিনি দলের দুঃসময়ে অতিরিক্ত দায়িত্ব হিসেবে জেলা শ্রমিকলীগের যুগ্ম আহবায়কের দায়িত্বও পালন করেন। তিনি ১৯৯৭ সালে পার্বত্য চট্টগ্রাম শান্তি চুক্তির সমর্থনে সাদা পতাকা মিছিলসহ সকল কর্মসূচীতে সক্রিয় ভাবে অংশ গ্রহন করেন। প্রতিটি জাতীয় সংসদ নির্বাচনে এবং স্থানীয় সরকার নির্বাচনে আওয়ামীলীগ দলীয় প্রার্থীর পক্ষে সক্রিয় ভূমিকা রাখেন। এছাড়া রাঙামাটির একজন সিনিয়র সংবাদ কর্মী হিসেবে সুপরিচিত। ইতোপূর্বে তিনি রাঙামাটি জেলা প্রেসক্লাবে পরপর তিনবার সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। বর্তমানেও পরপর তিনবার রাঙামাটি প্রেসক্লাবের সভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন। তিনি বর্তমানে রাঙামাটি জেলা আওয়ামীলীগের কার্যকরি কমিটির ২ নং সদস্য। তিনি সাধারণ মানুষের কল্যানে সবসময় কাজ করেন। এবার জেলা আওয়ামীলীগের বিপুল সংখ্যক সমর্থকের কাছে তাঁর প্রতি আগ্রহ রয়েছে।

সুতরাং দলের দুঃসময়ে দলের একজন ত্যাগী কর্মি হিসেবে এবং সুবক্তা ও প্রচার বিমুখ হিসেবে পরিচিত আসন্ন জেলা আওয়ামীলীগের সম্মেলনে সাধারণ সম্পাদক পদে সাখাওয়াৎ হোসেন রুবেলকে একজন অন্যতম প্রার্থী বলা যায়।