রাজস্থলীতে উদ্ধারকৃত গুলিবিদ্ধ ৩ লাশের পরিচয় মেলেনি! পৌরসভার মাধ্যমে সৎকার

॥ আলমগীর মানিক ॥

রাঙামাটির রাজস্থলীতে স্বজাতীয় সন্ত্রাসীদের হাতে নির্মমভাবে নিহত জেএসএস এর তিন সন্ত্রাসীকে রাঙামাটিতে এনে পোষ্টমটেম কার্যক্রম শেষ করে পৌরসভার মাধ্যমে দাহ প্রক্রিয়া সম্পন্ন করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার বেলা এগারোটার সময় নিহতদের রাঙামাটি জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে আসে রাজস্থলী থানা পুলিশ। দুপুর নাগাদ নিহতদের ময়নাতদন্তের কার্যক্রম প্রক্রিয়া শেষ করেন চিকিৎসকরা। এদিকে নিহতদের পরিচয় নিশ্চিত না হওয়াসহ তাদের কোনো স্বজনকে না পাওয়ায় রাঙামাটি পৌরসভার মাধ্যমে নিহতদের সৎকারের ব্যবস্থা করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন রাঙামাটির কোতয়ালী থানার অফিসার ইনচার্জ মীর জাহেদুল হক রনি।

এদিকে নিহত তিন মরদেহ রাঙামাটি জেনারেল হাসপাতালের মর্গে নিয়ে আসা রাজস্থলী থানার এসআই মোঃ শাহআলম জানিয়েছেন নিহতদের ব্যাপারে পুলিশের কাছে এখনো পর্যন্ত কেউ আসেনি। তাদের পরিচয় এখনো পর্যন্ত নিশ্চিত হওয়া যায়নি। এক প্রশ্নের জবাবে এসআই শাহআলম জানান, আমরা যতটুকু শুনেছি, আমাদের থানা থেকে ১৬ কিলোমিটার অদূরে বালুমুড়ার মারমা পাড়ায় দুইটি গ্রুপের মধ্যে গোলাগুলিতে উক্ত তিনজন নিহত হয়েছে।

এদিকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আঞ্চলিক দলগুলোর সশস্ত্র শাখা থেকে ছদ্মবেশে পরিচালিত কয়েকটি আইডির মাধ্যমে জানানো হয়, উক্ত তিনজনের বাড়ি রাজস্থলী-বান্দরবান সীমান্তের নুওপাড়া এলাকায়। তাদের মধ্যে মনারাম তঞ্চঙ্গ্যা কার্বারী ও তার ছেলে শুক্রমনি তঞ্চচঙ্গ্যার নাম জানাগেলেও অপরজনের নাম জানা যায়নি।

এদিকে এই ধরনের ঠিকানার কোনো অস্থিত্ব পাওয়া যাচ্ছেনা বলে জানিয়েছেন রাজস্থলী থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ মফজল আহাম্মদ খান। তিনি জানান, আমরা খবরটি পাওয়ার পরপরই বান্দরবান পুলিশের সাথে যোগাযোগ করেছি। কিন্তু আমাদেরকে উক্ত ব্যক্তিদের ব্যাপারে কোনো তথ্য কেউ দিতে পারেনি।

প্রসঙ্গত: সোমবার সন্ধ্যায় রাঙামাটির রাজস্থলী উপজেলাধীন বালুমুড়াস্থ মারমা পাড়া এলাকা থেকে হাত-পা বাধা এবং মাথায় গুলিবিদ্ধ অবস্থায় নিহত তিনজনের লাশ উদ্ধার করে নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা। স্থানীয়দের মাধ্যমে খবরপেয়ে তাদের উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

নিহতরা সকলেই পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি জেএসএস এর সক্রিয় সদস্য এবং স্বজাতীয় সন্ত্রাসীদের হাতেই তারা নিহত হয়েছে বলে মনে করছে পুলিশ। এই ব্যাপারে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহনের প্রস্তুতি চলছে বলেও জানিয়েছেন রাজস্থলী থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ মফজল আহাম্মদ খান।