গুজবেও স্থিতিশীল রাঙামাটির হাট-বাজার:মনিটরিংয়ে একাধিক মোবাইল কোর্ট(ভিডিও)

॥ আলমগীর মানিক ॥

নানা ধরনের গুজবের পরেও স্থিতিশীল রয়েছে পার্বত্য জেলা রাঙামাটির হাট-বাজারগুলো। জেলার শহরে এবং উপজেলাগুলোতে ইতিমধ্যেই প্রশাসনের উদ্যোগে শুরু হয়েছে বাজার মনিটরিং। গুজবের কারনে সারাদেশের ন্যায় পার্বত্য জেলা রাঙামাটির হাট-বাজারগুলোতেও যাতে করে লবন-পেয়াজের মূল্য উর্দ্বগতির দিকে নিতে নাপারে সেই লক্ষ্যে বাজার মনিটরিংয়ে মোবাইল কোর্ট নামিয়েছে রাঙামাটির জেলা প্রশাসন কর্তৃপক্ষ।

রাঙামাটির জেলা প্রশাসক একেএম মামুনুর রশিদ জানিয়েছেন, আমরা একজন অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট এর নেতৃত্বে জেলা সকল ইউএনওদেরসহ নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেটগণকে জেলাশহর ও উপজেলার হাট-বাজারগুলোতে মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে অভিযান চলমান রাখার নির্দেশনা প্রদান করা হয়েছে। তারই ধারাবাহিকতায় বুধবার সকাল থেকে শহরের বাজারগুলোতে অভিযান শুরু করা হয়। রাঙামাটি জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেটদের নেতৃত্বে পুলিশের সহায়তায় শহরের রিজার্ভ বাজার, বনরূপা ও তবলছড়ি বাজারে বুধবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত অভিযান পরিচালনা করা হয়।

এসময় বাজারের প্রতিটি মুদি দোকানে গিয়ে মূল্য তালিকা চেক করাসহ লবন ও পেয়াজের মূল্য না বাড়াতে এবং নির্ধারিত মূল্যে বিক্রি করার নির্দেশনা দেন কর্তব্যরত নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট বোরহান উদ্দিন। অভিযানের সময় রিজার্ভ বাজারে দু’জনকে জরিমানার আদেশ প্রদান করেন মোবাইল কোর্ট কর্তৃপক্ষ।

এসময় কর্তব্যরত নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মোঃ বোরহান উদ্দিন মিঠু জানান, গুজবের কারনে অসাধু ব্যবসায়িরা সুযোগ নিতে পারে এবং এতে করে সাধারণ নাগরিকরা ভোগান্তিতে পরার আশঙ্কা থাকায় রাঙামাটির জেলা প্রশাসক একেএম মামুনুর রশিদের নির্দেশনায় আমরা মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করছি। তিনি বলেন, লবনের দাম নিয়ে একটি গুজব ছড়ানো হচ্ছে। এটি নিয়ে আমরা বাজার মনিটরিংয়ে এসে সেরকম কিছু পাইনি।

এখানে ব্যবসায়িরা সহনীয় পর্যায়ে লবন বিক্রি করছে। জনাব বোরহান জানান, যে ধরনের গুজব ছড়ানো হচ্ছে সেই বিষয়টির উপর সার্বক্ষনিক নজর রাখার পাশাপাশি কঠোর অবস্থানে রয়েছে রাঙামাটি জেলা প্রশাসন র্কতৃপক্ষ। এই ধরনের গুজব রুখে দিতে স্থানীয় গণমাধ্যমসহ সচেতন নাগরিকদের এগিয়ে আসার আহবানও জানিয়েছেন তিনি।

বুধবার দুপুরে শহরের রিজার্ভ বাজার ও বনরূপা বাজারে সরেজমিনে গিয়ে ব্যবসায়িদের কথা বললে তারা জানান, মঙ্গলবার সকাল থেকে গুজবের কারণে বিকাল ৪ টা থেকে লবন কেনার হিড়িক পড়ে যায়। যে আধা কেজি লবন কিনতো সেও ৫ কেজি লবন ক্রয় করতে দেখা গেছে। আমরা বাড়তি দামে নয় প্যাকেটের গায়ের দামেই লবন বিক্রি করছি। তবে বাজারে কোন লবনের সংকট নেই।
ব্যবসায়িরা জানান, রাঙামাটির বাজারে লবনের কোন সংকট নেই তবে সোস্যাল মিডিয়ার কারণে মানুষের মাঝে আতংক ছড়িয়েছে। আমাদের কোম্পানী গুলোও কোন দাম বাড়ানোর সংবাদ আমাদের দেয়নি।

এদিকে কোনো ধরনের গুজবে কান নাদিয়ে গুজব ছড়ানো কারি বা অতিমাত্রায় মুনাফা আদায়কারি অসাধু ব্যবসায়ি ও ব্যক্তিবর্গের জন্য বিশেষ মনিটরিং সেল কন্টোল রুম খুলেছেন রাঙামাটির পুলিশ সুপার আলমগীর কবীর। তিনি জানিয়েছেন, দেশে পর্যাপ্ত লবনের মজুদ রয়েছে। লবনের মূল্য বৃদ্ধির কোনো প্রকার সম্ভাবনা নেই। তাই গুজবে কান দিয়ে বিভ্রান্ত না হতে রাঙামাটিবাসীর প্রতি অনুরোধ জানিয়েছেন পুলিশ সুপার।

তার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম একাউন্টে প্রকাশিত বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে জানানো হয়, রাঙামাটির কোথাও যদি কেউ লবনের অতিরিক্ত দাম চায়? তাহলে তাৎক্ষনিকভাবে পুলিশের বিশেষ কন্টোল রুম নাম্বার-০৩৫১-৬২০৪৪ নাম্বার অথবা জাতীয় হট লাইন নাম্বার-৯৯৯ এ কল দেওয়া অথবা নিকটস্থ থানায় জানানোর জন্য অনুরোধ জানিয়েছেন পুলিশ সুপার আলমগীর কবীর-পিপিএম।

রাঙামাটিতে বাজার মনিটরিংয়ে একাধিক মোবাইল কোর্ট(ভিডিও)

গুজবেও স্থিতিশীল রাঙামাটির হাট-বাজার:মনিটরিংয়ে একাধিক মোবাইল কোর্ট(ভিডিও) http://www.chttimes24.com/?p=71615&preview=true

Posted by ChtTimes24.com on Wednesday, 20 November 2019