অনেকটাই দালালমুক্ত হাটহাজারী ভূমি অফিস!

॥ হাটহাজারী প্রতিনিধি ॥

চট্টগ্রামের হাটহাজারী উপজেলা ভুমি অফিস অনেকটা দালালমুক্ত হয়েছে। উপজেলা নির্বাহী অফিসার রুহুল আমিন সহযোগিতায় উপজেলা সহকারী কমিশনার(ভুমি) সম্রাট খীসা ভূমি অফিসকে জনদূর্ভোগ থেকে অনেকটা এগিয়ে নিয়ে গিয়েছেন। এক সময় জনদুর্ভোগের চিরাচরিত সমলোচনার প্রচলিত ধারণা ভেঙ্গে দিয়ে উন্নত সেবা প্রদান নিশ্চিত করছে ভুমি অফিস। জনগণের সেবার পাশাপাশি ভুমি অফিসের মানচিত্রও পাল্টে দিয়েছে এসি ল্যান্ড সম্রাট খীসা।

অনেকটাই বদলে গেছে হাটহাজারী ভূমি অফিসের চাল চিত্র। চট্টগ্রামের হাটহাজারী উপজেলা ভুমি অফিসে দালালদের উৎপাত ঠেকাতে ও ভুমি সংক্রান্ত কাজে আগত জনসাধারনের নানা দুর্ভোগ লাঘবে বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ এসিল্যান্ডকে সার্বিক সহযোগিতা করে যাচ্ছেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার রুহুল আমিন তিনি সহকারী কমিশনার (ভূমি) সম্রাট খীসা ।

সহকারী কমিশনার (ভূমি) সম্রাট খীসা বলেন, নামজারি সহ ভূমি সংক্রান্ত যে কোন সেবার জন্য সরাসরি আবেদন করতে সবার প্রতি অনুরোধ জানান। সার্বিক নিরাপত্তা বিধান, দালালের দৌরাত্ব দূরি করণ, সেবার মান বৃদ্ধির লক্ষ্যে হাটহাজারী উপজেলা ভূমি অফিসে গুরুত্বপূর্ণ স্থানগুলোতে সিসি টিভি ক্যামেরা স্থাপন করা হয়েছে।

এসিল্যান্ড বলেন,ভূমি বিষয়ক বিভিন্ন সেবা প্রাপ্তির জন্য প্রতিদিন অসংখ্য মানুষ উপজেলা ভূমি অফিসে আসে। কিন্তু অফিসে এসে তারা বুঝতে পারে না কোথায় যাবে, কে তার সমস্যার বিষয়ে শুনবে, তার সমস্যার সমাধান দিবে ইত্যাদি। যে কারণে তারা মধ্যস্বত্ত্ব ভোগীর খপ্পরে পড়ে এবং অহেতুক হয়রানির স্বীকার হয়। উপজেলা ভূমি অফিসে আগত এ সকল ভূমি বিষয়ক সেবা প্রত্যাশী জনগণের সমস্যা ও অভিযোগ শোনা এবং তাৎক্ষনাৎ সেবা প্রদানের নিমিত্তে একটি One-Stop Service Centre তথা হেল্প ডেক্স স্থাপন করা হয়েছে। সরাসরি জনগণের কথা শুনার জন্য তাদের সেবা ও পরামর্শ সব সময় কাজে আসবে এ হেল্প ডেক্স। এতে করে মানুষ সহজেই ভূমি অফিসে এসে তার কাঙ্খিত সেবা পাবে। এসি ল্যান্ড অফিস সম্পর্কে সাধারণ মানুষের নেতিবাচক মনোভাব ছিল।আমরা সেটা কাটিয়ে উঠেছি। এখন ভূমি অফিস থেকে সেবা পাচ্ছে না এ কথা কেউ বলতে পারবে না।

হাটহাজারী উপজেলা ভূমি অফিস ঘুরে দেখা যায় সত্যিই পাল্টে গেছে সেখানকার চিত্র। জনগণকে সেবা দেওয়ার জন্য সেখানে পরিবেশের অনেক উন্নতি ঘটেছে। গত এক বছর আগে নামজারি কিংবা মিস কেস করতে গিয়ে সেবা প্রার্থীদের ঘণ্টার পর ঘণ্টা দাঁড়িয়ে থাকতে হতো। এখন সে সমস্যায় পড়তে হয় না।