শান্তি চুক্তির বর্ষপূর্তিতে বর্ণাঢ্য আয়োজন নিয়ে প্রেস ব্রিফিং

॥ খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি ॥

খাগড়াছড়িতে “পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তি (শান্তি চুক্তি)’র ২২ বছর পূর্তি বর্ণাঢ্য আয়োজনে উদযাপন উপলক্ষে প্রেস ব্রিফিং অনুষ্ঠিত করেছে। শুক্রবার বিকেলে খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদ হলরুমে এ প্রেস ব্রিফিং এর আয়োজন করে প্রচার উপ-কমিটি।

এতে প্রস্তুতির সকল তথ্য উপস্থাপন করেন, খাগড়াছড়ি জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কংজরী চৌধুরী। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, সদস্য খগেশ^র ত্রিপুরা, জুয়েল চাকমা ও সদর উপজেলা চেয়ারম্যান শানে আলম প্রমূখ। ২২তম বর্ষপূর্তিতে খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদ নানা কর্মসূচী গ্রহণ করে। তার মধ্যে ২ ডিসেম্বর সোমবার সকাল ৮টা ১৫ টায় মিনিটে পরিষদ প্রাঙ্গনে ঐতিহাসিক পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তির বাইশ বছর পূর্তিতে ২২টি স¥ারক বৃক্ষরোপনের মধ্য দিয়ে শুরু হবে আনুষ্ঠানিকতা।

সকাল সাড়ে ৮ টায় বর্নাঢ্য র‌্যালি পরিষদ প্রাঙ্গন হতে শুরু হয়ে শাপলা চত্বর হয়ে খাগড়াছডি টাউন হলে গিয়ে শেষ হবে। র‌্যালি শেষে “শান্তিচুক্তি একটি ঐতিহাসিক অর্জন” টাউন হল চত্বরে স্থাপিত জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ ও বর্ণিল ডিসপ্লে প্রদর্শন। ১০টায় খাগড়াছড়ি টাউন হল প্রাঙ্গনে ঐতিহাসিক পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তির বাইশ বছর পূর্তি উপলক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হবে।

এরই ধারাবাহিকতায় তিন পার্বত্য জেলায় রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের অবসান ঘটে। তাই পার্বত্য জনজীবনে, জাতি-ধর্ম-বর্ণ, নির্বিশেষে সকল মানুষের কাছে ঐতিহাসিক পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তি গুরুত্ববহ। বিকেল ৩টায় খাগড়াছড়ি জেলা পরিষদ ও খাগড়াছড়ি রিজিয়ন যৌথ উদ্যোগে ঐতিহাসিক খাগড়াছড়ি স্টেডিয়ামে বর্ণিল সম্প্রীতি কনসার্ট,¯েটডিয়ামে বাড়তি আকর্ষণের জন্য সন্ধ্যায় প্রদীপ প্রজ্জলন, আতসবাজী ও ফানুস উড়ানো।

পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তি(শান্তিচুক্তি)এর বিশেষ অবদানের স¦ীকৃতি হিসেবে সন্মাননা প্রদান,স্বীকৃতি প্রাপ্তদের কনর্সাট চলকালীন সম্মাননা প্রদান করা হবে। দিবসটি পালনে পোস্টার,মাইকিং,ফেস্টুুন ও আলোকসজ্জা ও সর্ব্বোচ্চ নিরাপত্তা ব্যবস্থা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। এতে প্রধান অতিথি থাকবেন ভারত প্রত্যাগত উপজাতীয় শরনার্থী বিষয়ক টাস্কফোর্স চেয়ারম্যান কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি। এতে জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কংজরী চৌধুরী,প্রশাসনিক,রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দসহ বর্ণিল আয়োজনে ঐতিহ্যবাহী নিজম্ব পোশাকে সকল সম্প্রদায়ের মানুষ অংশ নেওয়ার কথা রয়েছে।

এছাড়াও খাগড়াছড়ি রিজিয়নের ব্যবস্থাপনায় এ প্রথমবার খাগড়াছড়ি টাউন হল প্রাঙ্গনে ১-৩ ডিসেম্বর মেলা,মেলার প্রথম দিন চিত্রাংকন প্রতিযোগিতা ও বিভিন্ন সম্প্রদায়ের নিজস্ব ঐতিহ্যিক নৃত্য পরিবেশন, ফুটবল প্রীতিম্যাচসহ নানা কর্মসূচীর আয়োজন করা হয়েছে বলে এতে জানানো হয়।

পার্বত্য চট্টগ্রামের দুই দশকেরও বেশি সময় ধরে সংঘাতের অবসান ঘটিয়ে তৎকালীন আওয়ামী লীগ সরকার এবং জনসংহতি সমিতির মধ্যে পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছিল। ১৯৯৬ সালে সুদীর্ঘ ২১ বছর পর আওয়ামী লীগ তথা শেখ হাসিনা সরকার ক্ষমতা গ্রহনের পর পার্বত্য সমস্যা সমাধানের লক্ষ্যে সরকারের প্রদক্ষেপের ফলে শেখ হাসিনার প্রথম মেয়াদকালে ১৯৯৭ সালের ২রা ডিসেম্বর সরকার এই চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়।