শান্তিচুক্তি নিয়ে রাজা দেবাশীষ রায়ের উক্তি!

 

জ্যোতিরিন্দ্র বোধিপ্রিয় লারমাসহ উনার সহযোদ্ধারা জঙ্গলে থেকে লড়াই করছিলেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হস্তক্ষেপে উনারা অস্ত্র ফেলে শান্তির পথে ফিরেছিলেন। যেখানে এই জটিল পরিস্থিতি হতে পরিত্রাণ পাওয়া গিয়েছে সেখানে পাহাড়ের তথাকথিত যে ৪-৫টি আঞ্চলিক দলের কথা বলা হচ্ছে সেগুলি কিছুই না। তবে আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় দক্ষ ও নিরপেক্ষ হতে হবে তবেই শান্তি সম্ভব। 

জুমের চাল ও ৭-৮ তরকারি দিয়ে একটি পরিপুর্ণ ভোজ হয় সেখানে আপনি যদি আমাকে শুধু চিকেন বিরিয়ানী বা তেহেরী দেন তাহলে আমি বলবো চুক্তি বাস্তবায়ন হয়নি। তাই চুক্তির কয়টি ধারা বাস্তবায়ন হয়েছে তা না গুনে চুক্তির সব ধারা যেভাবে চুক্তিতে লেখা আছে সেভাবে বাস্তবায়ন করলে শুধু পাহাড় না সম্পুর্ন বাংলাদেশের জন্যই মঙ্গলজনক হবে।