স্বাধীনতার পর প্রথম কোন দাতাগোষ্ঠি পা ফেললো থানচিতে!

॥ থানচি প্রতিনিধি ॥

ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠিদের জীবন যাপন সামাজিক আচার- আচারনসহ টেকসই সামাজিক উন্নয়নের দাতা সংস্থা ইউনাইটেড ষ্ট্রেট এজেন্সি ইন্টারন্যাশনাল ডেভলবমেন্ট (USaid) নেতৃবৃন্দ বান্দরবানে থানচিতে স্বাধীনতার ৪৮ বছরে এই প্রথম পা রাখলেন ।
নেতৃবৃন্দরা হচ্ছেন বাংলাদেশে নিযুক্ত মিশন পরিচালক ডেরিক ব্রন, পাটি প্রধান ট্রিনার বিশপ, খাদ্য ও পুষ্ঠি বিষয়ক প্রধান টমাস পপ, ক্যাথলিক রিলিফ সার্ভিস ক্যান্ট্রি ম্যানেজার স্মীধা চক্রবর্তী, পেট্রিক ইথান, ডেরিক স্কট কারিতাস বাংলাদেশ এর চট্টগ্রামে আঞ্চলিক পরিচালক জেমস গোমেজ সাথে ছিলেন ।

আন্তর্জাতিক এনজিও সংস্থা হেলেন কেয়ার,কারিতাস বাংলাদেশ যৌথ সহযোগীতায় স্থানীয় এনজিও সংস্থা গ্রাউজ এর আয়োজনে বুধবার (৪ ডিসেম্বর ) সকাল ১০ টা প্রথম বারের মতো ইউনাইটেড ষ্ট্রেট এজেন্সি ইন্টারন্যাশনাল ডেভলবমেন্ট (USaid) নেতৃবৃন্দ থানচি উপজেলা রেমাক্রী ইউনিয়নের রেমাক্রী বাজারের আশেপাশে এলাকা পরিদর্শণ করেন । পরিদর্শনের সময় রেমাক্রী ইউনিয়নের পারিবারিক পুষ্ঠি কেন্দ্র (এফএনসি) পরিচালনা পুষ্ঠি খাদ্য সংরক্ষণ ও ব্যবহারের জন্য শংঙ্খ নদী ধারের মসলা জাতীয় ফসল চীনা বাদাম, শাক সবজি, ভূট্টা, আলু, ধন্যাসহ ইত্যাদি ফসল চাষের উপর পরিদর্শণ ও পরিচর্চা উপর রিসার্স করেন । পরে রেমাক্রী বাজারের পাহাড়ের নিজস্ব ভাষা সাংস্কৃতিক চর্চা হিসেবে একটি টেলিফিল্মে পথ নাটক উপভোগ করেন। উপভোগের শেষে ডেরিক ব্রন সাংবাদিকদের অত্যন্ত সন্তোজনক এবং তাদের ভালো লাগা এবং নিজ দেশের সাথে সাংস্কৃতিকগত মিল রয়েছে বলে অনুভুতি প্রকাশ করেন । কাল বৃহস্পতিবার সকালের থানচি সদর ইউনিয়নের ওয়াক চাক্কু পাড়ায় জিএসএফ পাইপ মাধ্যমে বিশুদ্ধ পানীয় জল সরবরাহ বাস্তবায়িত প্রকল্প পরিদর্শণ করবেন।

সূত্রে জানা যায়, প্রধান মন্ত্রীর ঘোষনা ২০২১ সালে টেকসই উন্নয়ন গোল্ড (এসডিজি-১০) এর আওতায় আনার লক্ষ্যে সরকারি বেসরকারি সংস্থা অক্লান্ত শ্রমে বিনিময়ে তৃনমূলে কাজ করে যাচ্ছে । সে লক্ষ্যে জনপ্রতিনিধি সরকারি সংস্থা ও বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা সমন্বয়ে মাধ্যমে বান্দরবানে থানচি উপজেলা ৪টি ইউনিয়নের প্রায় ৪ হাজার ৬৩জন নিন্মবিত্ত হত দরিদ্র পরিবারকে কৃষি ,স্বাস্থ্য, সঞ্চয়, দুযোর্গ মোকাবেলা, মার্কেটিং ৭টি প্রকল্পের অর্ন্তভূক্ত করে এক যোগে বাস্তবায়ন করে যাচ্ছে ।

এ সময় ইউএনডিপি সিএইচটিডিএফ এর ন্যাশনাল প্রজেক্ট ম্যানেজার প্রসেজিদ চাকমা, চীপ জেন্ডার এন্ড কমিউনিটি জুমার দেওয়ান, জেলা ব্যবস্থাপক খুশীরায় ত্রিপুরা, গ্রাউজ পরিচালক চাইসিংমং মারমা, স্যাপলিং প্রকল্পের প্রোগ্রাম ম্যানেজার অংশৈসিং মারমা (মংরে) হেলেন কেয়ার এর কৃষি বিদ টেকনিক্যাল অফিসার মিহির চাকমা, হেলেন কেয়ার ইন্টারন্যাশনাল এর জেলা ফোকাল পারশান ডঃ অংসাজাই মারমা গ্রাউজ থানচি উপজেরা কো-অর্ডিনেটর মংউচিং মারমা ও রেমাক্রী ইউনিয়নের জনপ্রতিনিধি, হেডম্যান কারবারী গন্যব্যক্তিবর্গরা স্বতস্ফুর্তঅংশ গ্রহন করেন।

এনজিও সংস্থা গ্রাম উন্নয়ন সংস্থা (গ্রাউজ) এর স্যাপলিং প্রকল্পের থানচি উপজেলা কো- অর্ডিনেটর মংউচিং মারমা জানান, দাতা সংস্থা ইউনাইটেড ষ্ট্রেট এজেন্সি ইন্টারন্যাশনাল ডেভলবমেন্ট (টংধরফ) অর্থায়নে এনজিও সংস্থা হেলেন কেয়ার ইন্টারন্যাশনালকে প্রতি বছরে ৩.৫ মিলিয়ন ডলার যা বাংলাদেশের মূদ্রা প্রায় আড়াইশত কোটি টাকা অনুমোদন দিয়েছিল । হেলেন কেয়ার ইন্টারন্যাশনাল এই প্রকল্পের কাজ সরাসরি ২০১৪-১৫-১৬ তিন বছর করে আসছিল । থানচি উপজেলা ২১৭টি ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠি পাড়ায় উচ্চ বিত্ত, মধ্য বিত্তদের বাদ দিয়ে নিন্মবিত্ত অর্থাৎ হত দরিদ্র ৪ হাজার ৬৩ পরিবারকে এই প্রকল্পের আওতায় আনা হয়েছে।