রাঙামাটিতে বিএইচআরসি’র আলোচনা সভা ও কমিটি ঘোষণা

॥ ইকবাল হোসেন ॥

৭১তম জাতীয় মানবাধিকার দিবস-২০১৯ উপলক্ষ্যে “মানবাধিকার সমুন্নত রাখতে দৃঢ় প্রতীজ্ঞ যুব সমাজ” প্রতিপাদ্য কে সামনে রেখে বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন (বিএইচআরসি), রাঙামাটি জেলা শাখার উদ্যোগে আলোচনা সভা ও রাঙামাটি সদর উপজেলা কমিটির নাম ঘোষণা এবং শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে। নব নির্বাচিত ৩বছর মেয়াদি ২৩সদস্য বিশিষ্ট রাঙামাটি সদর উপজেলা কমিটিতে সভাপতি হিসেবে মো. জামশেদ আহম্মদ চৌধুরী ও সাধারণ সম্পাদক উদয়ন বড়–য়া ঝুন্টু দায়িত্ব পেয়েছেন।

মঙ্গলবার (১০ ডিসেম্বর ২০১৯ খ্রিষ্টাব্দ) বিকেলে শহরের কাঁঠালতলীতে অবস্থিত বড়–য়া ড্রাইভিং ইনিস্টিটিউট এ বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন রাঙামাটি জেলা’র সভাপতি ডা. সুপ্রিয় বড়–য়ার সভাপতিত্বে আলোচনা সভা ও রাঙামাটি সদর উপজেলা কমিটির নাম ঘোষণা এবং শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে।

এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন প্রবীণ সাংবাদিক ও বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন (বিএইচআরসি) তিন পার্বত্য জেলার সমন্বয়ক আলহাজ্ব একেএম মুকছুদ আহমদ। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিএইচআরসি রাঙামাটি’র উপদেষ্টা সদস্য বাবু বিজয় রতন দে, বি. আর. টি. এ’র সাবেক যুগ্ম-পরিচালক বাবু উত্তম কুমার বড়–য়া, অবসরপ্রাপ্ত বাংলাদেশ সরকারি কর্মচারী কল্যাণ পরিষদ রাঙামাটি’র সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ জসীম উদ্দীন, বিএইচআরসি রাঙামাটি সদর উপজেলা’র সভাপতি মো. জামশেদ আহম্মদ চৌধুরী, বিএইচআরসি রাঙামাটি’র সহ-সভাপতি বাবু আনন্দ মণি চাকমা, সহ-সভাপতি সঙ্গপ্রিয় বড়–য়া। স্বাগত বক্তব্য রাখেন বিএইচআরসি রাঙামাটি’র সাধারণ সম্পাদক তপন কান্তি বড়–য়া। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন বিএইচআরসি রাঙামাটি সদর উপজেলা কমিটির সাধারন সম্পাদক উদয়ন বড়–য়া ঝুন্টু।

স্বাগত বক্তব্যর পর বিএইচআরসি রাঙামাটি জেলা শাখার সভাপতি ডা. সুপ্রিয় বড়–য়া নব-গঠিত ২৩ সদস্য বিশিষ্ট রাঙামাটি সদর উপজেলা কমিটিতে দায়িত্বপ্রাপ্তদের নাম ঘোষনা ও শপথনামা পাঠ করান।

এরপর সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন রাঙামাটি জেলা কমিটির সহ-সভাপতি বাবু সমীর কান্তি বড়–য়া, সদর উপজেলা কমিটির সহ-সভাপতি রবীন্দ্রলাল বড়–য়া, সহ-সভাপতি বাবু মিলন কান্তি চাকমা, সাংগঠনিক সম্পাদক জুয়েল দেওয়ান, রাঙামাটি জর্জ কোর্ট রাইটার সমিতির সাধারণ সম্পাদক সমীরণ বড়–য়া প্রমূখ।

আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য- প্রবীণ সাংবাদিক ও বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন রাঙামাটি জেলার সমন্বয়ক আলহাজ্ব এ কে এম মুকছুদ আহমদ বলেন রাঙামাটিতে দীর্ঘদিন যাবত আমি বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশনের সাথে দীর্ঘদিন যাবত কাজ করে যাচ্ছি। এছাড়াও আমি আমার সুদীর্ঘ সাংবাদিকতা জীবনে সর্বদাই মানবাধিকার সম্পর্কিত লেখালেখি করেছি এবং যতদিন বেঁচে আছি আমি লিখে যাব। তিনি আরো বলেন জেলা কমিটি আর সদর উপজেলা কমিটি একসাথে কাজ করলে মানবাধিকার রক্ষায় আমাদের কার্যক্রম আরো বেগবান হবে তাই সকলকে সমন্বয় করে একসাথে কাজ করতে তিনি আহ্বান জানান। এদিকে তিনি চিকিৎসার অভাবে যাতে কেউ মারা না যায় বা কষ্ট না পায় তাই ডাক্তার সুপ্রিয় বড়–য়া যে বিনামূল্য চিকিৎসা সেবা প্রদানের কাজটি করে যাচ্ছেন। তাই ডাক্তার সুপ্রিয় বড়–য়ার এই মহৎ কাজকে তিনি সাধুবাদ জানান ও বিশেষ ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। পরিশেষে তিনি রাঙামাটিতে বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন এর কার্যক্রম বেগবান করতে তার পক্ষ থেকে সার্বিক সহযোগিতা অব্যহত থাকবে বলে আশ্বাস দেন।

উল্লেখ্য- বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন রাঙামাটি সদর উপজেলা’র ২৩ সদস্য বিশিষ্ট কমিটির দায়িত্বপ্রাপ্তরা হলেন- সভাপতি মো. জামশেদ আহম্মদ চৌধুরী, সিনিয়র সহ-সভাপতি শিক্ষক তপন কান্তি বড়–য়া, সহ-সভাপতি মিলন কান্তি চাকমা, রবীন্দ্রলাল বড়–য়া, সোমা বেগম পূর্ণিমা, নরেশ মজুমদার, সাধারণ সম্পাদক উদয়ন বড়–য়া ঝুন্টু, সহ- সাধারণ সম্পাদক মো. ইয়াকুব মিয়া, অসীম চাকমা, অর্থ সম্পাদক অরুন কান্তি বড়–য়া, সাংগঠনিক সম্পাদক জুয়েল দেওয়ান, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক মিলন কান্তি বড়–য়া, দপ্তর সম্পাদক অনিরুদ্ধ চাকমা, মহিলা বিষয়ক সম্পাদক মিসেস গীতা বড়–য়া, সাংস্কৃতি সম্পাদক পাপড়ি বড়–য়া, আইন বিষয়ক সম্পাদক বাবুল কান্তি দে, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক সনজীব কুমার চাকমা, সমাজ কল্যাণ সম্পাদক সঞ্জয় তংচাংঙ্গা আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক চাইথোয়াই মারমা, নির্বাহি সদস্য দেবদত্ত মুৎসুদ্দী, সাগর দাশ, সুজন দাশ, ইশতিয়াক কামাল মুন্না।