শহীদ বুদ্ধিজীবি দিবসে রাঙামাটিতে আ:লীগের আলোচনা সভা-মিলাদ মাহফিল

॥ শহিদুল ইসলাম-মাসুদ পারভেজ ॥

শহীদ বুদ্ধিজীবি দিবস উপলক্ষে ১৪ ডিসেম্বর শনিবার আলোচনা সভা ও মিলাদ মাহফিল এর আয়োজন করেছে রাঙামাটি জেলা আওয়ামীলীগ ও দলটির অঙ্গ সহযোগি সংগঠনের নেতাকর্মীরা। শনিবার বিকেলে রাঙামাটির কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে জেলা আ:লীগের সহ-সভাপতি হাজী মো: কামাল উদ্দীন’র সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় উপস্থিত ছিলেন জেলা আ:লীগে’র সহ-সভাপতি নিখিল কুমার চাকমা, সাধারণ সম্পাদক হাজী মো. মুছা মাতব্বর, যুগ্ম-সম্পাদক কেএম জসিম উদ্দীন বাবুল, প্রচরি সম্পাদক মমতাজ উদ্দীন প্রমুখ।

আ:লীগের তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক রফিকুল মাওলার সঞ্চালনায় উক্ত আলোচনায় পৌর আ:লীগের সহ-সভাপতি নাছির উদ্দীন তালুকদার, সদর থানা আ:লীগের সভাপতি দীপক চাকমা, জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক নূর মোহাম্মদ কাজল, জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি আব্দুল জাব্বার সুজন, জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক প্রকাশ চাকমা, সদর থানা ছাত্রলীগ’র সভাপতি নজরুল ইসলাম, কলেজ ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি সুলতান মাহমুদ চৌধুরী বাপ্পাসহ জেলা আওয়ামীলীগসহ অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন, দীর্ঘ নয় মাসের রক্তক্ষয়ী মুক্তিসংগ্রামের শেষলগ্নে জাতি যখন চূড়ান্ত বিজয়ের দ্বারপ্রান্তে ঠিক তখনই ১৪ ডিসেম্বরের সেই কাল রাতে বাঙালি মেধার নৃশংস এই নিধনযজ্ঞ চলে, যা হতবিহ্বল করে তুলেছিল পুরো বিশ্বকে।

১৪ই ডিসেম্বরের হত্যাকান্ড ছিল পৃথিবীর ইতিহাসের অন্যতম বর্বর হত্যাকান্ড। এঘটনা বিশ্বব্যাপী শান্তিকামী মানুষকে স্তম্ভিত করেছিল। পাকিস্তানি বাহিনী ও তাদের এ দেশীয় দোসররা পৈশাচিক হত্যাযজ্ঞের পর ঢাকার মিরপুর, রায়েরবাজারসহ বিভিন্ন স্থানে বুদ্ধিজীবীদের মৃতদেহ ফেলে রেখে যায়।

আমাদের নতুন প্রজন্মকে এই নিকৃষ্টতম হত্যাযজ্ঞ সম্পর্কে এবং হায়েনাদের তাদের দোসরকে সম্পর্কে আমাদেরকেই জানাতে হবে এবং দেশের আগামীদিনের বুদ্ধিজীবি হিসেবে গড়ে তুলতে হবে। আলোচনা সভা শেষে শহীদ বুদ্ধিজীবী দের আত্মার মাগফিরাত কামনায় বিশেষ দোয়া ও মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।