বান্দরবান থেকে অপহৃত কিশোরী রাঙামাটিতে উদ্ধার : প্রধান আসামী মোর্শেদ গ্রেফতার

Atok-20-03.15॥ আলমগীর মানিক ॥ পার্শ্বোক্ত জেলা থেকে বার্তা পাওয়ার একঘন্টার মধ্যে কিশোরী অপহরণ মামলার প্রধান আসামীকে গ্রেফতার করলো রাঙামাটির কোতয়ালী থানা পুলিশ।

গ্রেফতারকৃত আসামী মোর্শেদ আলম চট্টগ্রামের চন্দনাইশের বাসিন্দা। বৃহস্পতিবার রাতে রাঙামাটি শহর থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন কোতয়ালী থানার অফিসার ইনচার্জ মনু সোহেল ইমতিয়াজ।

কোতয়ালী থানার দ্বিতীয় কর্মকর্তা এসআই মোঃ শাহআলম জানিয়েছেন, শুক্রবার রাত সাড়ে আট’টার সময় বান্দরবান সদর থানা থেকে রাঙামাটি কোতয়ালী থানায় একটি বার্তা আসে।

যাহাতে উল্লেখ ছিলো, উক্ত আসামী ১৫ বছর বয়সী একজন কিশোরীকে নিয়ে রাঙামাটি শহরে অবস্থান করছে। এর পরপরই আমি আমার সহকর্মী এএসআই হাসানুজ্জামান, কনষ্টেবল শাহজাহান, বাপ্পী ও সোহেলকে নিয়ে শহরের কয়েকটি জায়গায় অভিযান পরিচালনা করি।

পরে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রাত সাড়ে নয়টার সময় শহরের হ্যাপীর মোড় এলাকা থেকে আসামী মোর্শেদকে গ্রেফতার করি। পরে তার স্বীকারোক্তি অনুসারে ভিকটিম কিশোরী কন্যাটিকেও উদ্ধার করতে সক্ষম হই।

কোতয়ালী থানার অফিসার ইনচার্জ মনু সোহেল ইমতিয়াজ জানিয়েছেন, উপরোক্ত আসামী মোর্শেদ বান্দরবানের বালাঘাটা এলাকা থেকে জনৈক মমতাজ মিয়ার ১৫ বছর বয়সী কন্যাকে অপহরণ করে রাঙামাটিতে নিয়ে আসে।

তার বিরুদ্ধে বান্দরবান সদর থানায় মেয়ের বাবা বাদি হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন ২০০০ এর সংশোধিত ধারা (০৩) এর ৭/৩০ ধারায় মামলা দায়ের করেছিলো।

মামলার নাম্বার হলো-০৯ তারিখ-১৯/০৩/২০১৫ ইং। আটককৃত আসামীর বাড়ি চট্টগ্রামের চন্দনাইশ উপজেলাধীন বৈলতলীস্থ জাফফরাবাদ এলাকায় বলে জানাগেছে।

থানার দায়িত্বরত ডিউটি অফিসার এএসআই বিশ্বজিৎ পোদ্দার জানিয়েছেন, উদ্ধারকৃত ভিকটিম মেয়েটিকে বর্তমানে রাঙামাটি ভিকটিম সার্পোট সেন্টারে রাখা হয়েছে।

Leave a Reply