পার্বত্য চট্টগ্রাম থেকে বাঙ্গালীদের সরানোর প্রস্তাব দেওয়ায় ইউএনডিপির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি

Press

॥ আলমগীর মানিক ॥ উন্নয়নের কথা বলে পার্বত্য চট্টগ্রামে সাম্প্রদায়িক উষ্কানী-দাঙ্গা ও খীষ্ট্রান মিশনারীর মাধ্যমে পার্বত্যাঞ্চলকে খ্রিষ্টীয় অঞ্চলে পরিণত করায় পাহাড়ে বিতর্কিত জাতিসংঘ উন্নয়ন সংস্থা ইউএনডিপি’র সকল কার্যক্রম বন্ধ করে এই এনজিওর বিরুদ্ধে সরকারিভাবে ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানিয়েছে বাঙ্গালীদের দুইটি সংগঠন।

শনিবার পার্র্বত্য নাগরিক পরিষদ ও বাঙ্গালী ছাত্র পরিষদের ব্যানারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এই দাবি করেন সংগঠনগুলোর নেতৃবৃন্দ। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন পার্বত্য নাগরিক পরিষদের আহবায়িকা বেগম নুর জাহান। এসময় বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন বাঙ্গালী ছাত্র পরিষদের সভাপতি মোঃ ইব্রাহিম ও সিনিয়র সহ-সভাপতি মোঃ সেলিম উদ্দিন।

সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করে বলা হয়, পার্বত্য চট্টগ্রামে ১৩টি সম্প্রদায়ের ১৬ লক্ষ্য লোক বসবাস করলেও শুধুমাত্র একটি সম্প্রদায়কে সকল সুযোগ-সুবিধা দিয়ে পার্বত্য চট্টগ্রামকে অশান্ত করে তুলছে ইউএনডিপি’র মতো বিদেশী উন্নয়ন সংস্থাগুলো।

ইউএনডিপি পার্বত্য চট্টগ্রামে বসবাসরত বাঙ্গালীদেরকে অত্রাঞ্চল থেকে সমতলে নিয়ে যাওয়ার ব্যাপারে যে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে তা অচিরেই বন্ধ করা নাহলে পার্বত্য এলাকায় যেকোনো সময় সাম্প্রদায়িক দাঙ্গার মতো অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটে যেতে পারে। তাই অবিলম্বে এই ইউএনডিপিকে পার্বত্য চট্টগ্রাম থেকে বিতাড়িত করতে সরকারের প্রতি দাবি জানানো হয় সংবাদ সম্মেলন থেকে।

সংবাদ সম্মেলনে পার্বত্য চট্টগ্রামে সন্ত্রাস-চাদাঁবাজি ও অবৈধ অস্ত্র উদ্ধারে যৌথ বাহিনীর অভিযান পরিচালনা, চাকুরি নিয়োগেরে ক্ষেত্রে সাম্প্রদায়িক উপজাতীয় কৌটা বাতিল করে অসাম্প্রদায়িক পার্বত্য কোটা চালু, রাঙামাটি মেডিকেল কলেজ ও বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়স্থাপনে বাধাকারিদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া, পার্বত্য চট্টগ্রামে স্থায়ী ও টেকসই শান্তি স্থাপনের লক্ষ্যে উপজাতীয় এবং বাঙ্গালী নেতৃবৃন্দের সাথে সংলাপের আয়োজন করাসহ সর্বমোট ১১ দফা দাবি উত্থাপন করা হয়।

Leave a Reply