ব্রেকিং নিউজ

রাঙামাটি বেড়াতে এসে পলওয়েল পার্কের সৌন্দর্যে মুগ্ধ নেদারল্যান্ড দম্পতি


॥ আলমগীর মানিক ॥

পার্বত্য জেলা রাঙামাটিতে বেড়াতে এসে অনলাইন বুকিংয়ের মাধ্যমে রাঙামাটি শহরে জিরোমাইল এলাকায় অবস্থিত পলওয়েল পার্কের নিজস্ব কটেজে রাত্রীযাপন করে পার্কটির সৌন্দর্য অবলোকন করে কর্তৃপক্ষের আতিথিয়েতায় মুগ্ধ হয়ে কর্তৃপক্ষের ভূয়সী প্রশংসা করেছেন সুদূর নেদারল্যান্ড থেকে বেড়াতে আসা নব দম্পত্তি রোলান্ড হেরিমা এবং মেরিনা আন্না।

রোববার রাঙামাটিতে এসে বিকেলে পলওয়েল পার্কে পৌছালে পলওয়েল কটেজে কর্মরত হাস্যোজ্জ্বল পুলিশ সদস্যরা স্বাগত জানায় নেদারল্যান্ড দম্পতিকে। এসময় চেক ইন হতে শুরু করে কটেজে পৌছানো, পলওয়েল ক্যাফেটেরিয়ায় ডিনার, কটেজের সুসজ্জিত কক্ষে রাত্রীযাপন এবং ব্রেকফাস্ট প্রভৃতি অত্যন্ত আনন্দের সহিত উপভোগ করেন বিদেশী এই দম্পতি।

সোমবার সকালে ঘন কুয়াশার মধ্য পলওয়েল পার্ক পরিদর্শনে বের হন রোলান্ড হেরিমা এবং মেরিনা আন্না। এসময় পলওয়েল পার্কের প্রাকৃতিক সৌন্দর্য আর নানা ধরনের দেশীয় ঐতিহ্যচিত্র দেখে বেশ উপভোগ করে আপ্লুত হন তারা।

পুলিশ বাহিনীর সদস্যদের মাধ্যমে পরিচালিত পলওয়েল পার্কে এসে তাদের আতিথিয়েতায় মুগ্ধ হয়ে রাঙামাটির পুলিশ সুপারের সাথে সাক্ষাতের আগ্রহ করেন তারা। পরে তাদের আগ্রহে রাঙামাটির পুলিশ সুপার মোঃ আলমগীর কবীর-পিপিএম-সেবা) পলওয়েল পার্কে গিয়ে এই দম্পতির সাথে সৌজন্য সাক্ষাতে মিলিত হন।

এসময় পুলিশ সুপার নেদারল্যান্ড দম্পত্তিকে পলওয়েল পার্কের বর্তমান চলমান কাজ এবং ভবিষ্যৎ সম্ভাবনা, কাপ্তাই লেক’কে কেন্দ্র করে রাঙামাটি জেলার পর্যটন শিল্প বিকাশের সম্ভাবনা, কাপ্তাই লেকের উপর নির্ভর করে এখানকার জনগনের জীবনযাত্রা প্রভৃতি বিষয় উপস্থাপন করেন।

রাঙামাটিতে ভ্রমণের জন্য পলওয়েল পার্ক ও কটেজ’কে প্রথম পছন্দের মধ্য রাখায় রোলান্ড হেরিমা এবং মেরিনা আন্না’কে ধন্যবাদ জানান পুলিশ সুপার। পুলিশের পরিচালনাধীন পলওয়েল পার্কে এসে এখানকার আতিথিয়েতায় মুগ্ধ হন এবং কর্তৃপক্ষের ভূয়সী প্রশংসাও করেছেন নেদারল্যান্ড দম্পত্তি রোলান্ড হেরিমা এবং মেরিনা আন্না।