থানায় অভিযোগ দিলেন চিকিৎসকের ভুলে প্রাণ হারানো শিশুটির পিতা

॥ ওমর ফারুক সুমন ॥

বাঘাইছড়িতে চিকিৎসকের অবহেলায় শিশু মৃত্যুর ঘটনায় বিচার চেয়ে পুলিশের দারস্থ হয়েছে নিহত শিশুর বাবা জয়েস চাকমা। ১২ জানুয়ারী রবিবার বিকেল পাঁচ ঘটিকায় বাঘাইছড়ি থানায় হাজির হয়ে অফিসার ইনচার্জ বরাবরে লিখিত অভিযোগ পেশ করেন বাঘাইছড়ি ইউনিয়নের ১ নং ওয়ার্ডের জীবতুলী গ্রামের স্থায়ী বাসিন্দা জয়েস চাকমা। অভিযোগে তিনি বাঘাইছড়ি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সহকারী আরএমও ডাঃ বিষনুপদ দেবনাথ ও ব্যাসরকারী ক্লিনিক কেয়ার ডায়গোনোস্টিক এর মালিক মোঃ আনোয়ার হোসেন, পিতাঃ মোস্তফা কে বিবাদী করেছেন, অভিযোগের বিষয়টি বাঘাইছড়ি থানার ওসি এমএ মনজুর নিচ্শিত করেন, বলেন আমরা অভিযোগটি গুরুত্বের সহিত আমলে নিয়েছি এবং উর্ধতন কর্তৃপক্ষের সাথে পরামর্শ করেছি কর্তৃপক্ষের অনুমতি সাপেক্ষে তদন্তকরে প্রয়োজনীয় ব্যাবস্থা গ্রহন করবো।

জয়েস চাকমার লিখিত অভিযোগের আলোকে জানাযায় গত ৯ জানুয়ারী সন্ধা ৬ ঘটিকায় স্ত্রীকে ডেলিভারি সমস্যা নিয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করান কিন্তু ভর্তির পর থেকে ১০ জানুয়ারী রাত ৮ ঘটিকা পর্যত কোন ডাক্তার রোগীর খোজ নেন নাই, সবাই ব্যাক্তিগত কাজে বাহিরে ছিলেন কেও খেলাধুলা, কেওবা নাস্তার অযুহাতে কেবল মাত্র একজন নার্স হাসপাতালে ছিলো, স্ত্রীর প্রসব ব্যাথা উঠলে ডাক্তারের জন্য অনেক দৌড়াদৌড়ি করে না পেয়ে নার্স একাই লড়ে নবজাতককে ডেলিবারী করান, কিন্তু শিশুটির অবস্থা খারাপ হয়ে পড়ায় ডাক্তারকে অনেক খুজাখুজির পর কেয়ার ডায়গনোস্টিক সেন্টারে পাওয়া যায়, পরে মোটর সাইকেল যোগে হাসপাতাল গিয়ে তড়িঘড়ি করে শিশুটিকে খাগড়াছড়ি রেফার করে দেয়, তখন এম্বুলেন্স যোগে খাগড়াছড়ি নেয়ার পথে অক্সিজেন ডেলিভারি সমস্যা হয় এতে এম্বুলেন্স থামিয়ে অক্সিজেন মেরামত করতে করতে খাগড়াছড়ি পৌছাতে নির্দৃষ্ট সময়ের চেয়ে ১ ঘন্টা সময় বেশী লাগে ফলে এম্বুলেন্সেই নবজাতকের মৃত্যু হয়।

এদিকে এই ঘটনা সমাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে কেয়ার ডাইগনোস্টিক সেন্টারের মালিক আনোয়ার হোসেন নানা ভাবে নবজাতের বাবা জয়েস চাকমাকে হুমকি ধমকি দেয়াসহ মানহানিকর মন্তব্য করেন বলে অভিযোগে দাবী করা হয় । অক্সিজেন সমস্যা নিয়ে এম্বুলেন্স ড্রাইভার অনুপম চাকমা বলেন গাড়ীতে অক্সিজেন বেশ কয়েকবার সমস্যা দেখা দেয়, শিশুটি কখন যে মারা গিয়েছে বুজতেই পারিনি, অভিযোগের বিষয়ে জয়েস চাকমা বলেন আমি আমার সন্তান হত্যার বিচার চাই, বিচার চেয়ে আমি বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ করেছি, আমি প্রশাসনের কাছে একটাই দাবী জানাই আমার মত যেন কোন বাবা তার সন্তানকে অকালে না হারায় কোন মায়ের বুক যাহাতে খালি না হয়। আর কেয়ার ডায়গনোস্টিক সেন্টারের বৈধতা নিয়েও প্রশ্ন তুলেন জয়েস চাকমা।