রাঙ্গামাটিতে বেপরোয়া গতির বাইকে বাড়ছে দুর্ঘটনা

॥ মাসুদ পারভেজ নির্জন ॥

বাহারি চুলে পোশাকে আধুনিক প্রচন্ড গতিতে শব্দ তুলে সরু রাস্তা দিয়ে ট্রাফিক আইনকে বৃদ্ধাঙ্গুুলি দেখিয়ে রাঙামাটি শহরে মোটর বাইক দিয়ে কারিশমা দেখাচ্ছে উঠন্ত বয়সের তরুনরা। ঝড়ের গতিতে বাইক চালিয়ে হুট করে মোড় নেয়,ট্রাফিক আইন জানেনা বেশিরভাগই।জানলেও বিন্দুমাত্র মানছেনা এসব তরুনরা।অনেকেরই লাইসেন্স নেই ।হেলমেট নেই।

কানে হেডফোন আর চুলে জেল লাগিয়ে ফ্যাশনের ড্রেস পরিধান করে বিদ্যালয় ও কলেজ ক্যাম্পাস অতিক্রম করার সময় আকস্মিকভাবে গতি বেড়ে যায়,গতির পাশাপাশি সাপের মত একেবেঁেক চালিয়ে যায় তরুন মোটর বাইকাররা। এসব তরুন মোটর বাইকাররা নিজের জীবন ঝুকিতে ফেলার পাশাপাশি নিরীহ সাধারণ মানুষের জীবনও ঝুকিতে ফেলছে।

রাঙামাটি শহরের বাসিন্দা সাকিব জানান,বেপরোয়া তরুন বাইকাররা যদি ট্রাফিক আইন না মেনে মোটর সাইকেল চালায় তাহলে প্রানঘাতী বড় দুর্ঘটনা শুধু তার জীবনের মোড় ঘুরিয়ে দিবে তা নয় তার দোষের খেসারত নির্দোষ সাধারণ মানুষের সারা জীবনের মোড় ঘুরিয়ে দিবে।

পথচারী তন্ময় জানান,তরুন মোটরবাইকাররা যেভাবে রাস্তায় স্টান্ড প্রদর্শনী করে তারা কি মনে করে এসব স্টান্ড করে জানিনা আমি মনে করি এগুলো যৌবনের নির্বোধতম প্রানঘাতী প্রদর্শনী।

এ বিষয়ে ট্রাফিক ইন্সপেক্টর ইসমাইল জানান,তরুনরা রাস্তা ফাকা পেলেই মোটরবাইক উচ্চ গতিতে চালাচ্ছে।যাদের ড্রাইভিং লাইসেন্স নেই হেলমেট নেই তাদের বিরুদ্ধে প্রতিনিয়ত ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।এমনকি গাড়ি আটক করা হচ্ছে।কিন্তু পরিবার থেকে সচেতনতার অভাবে এই সমস্যা হচ্ছে এমনকি কিছু কিছু পরিবার সন্তানদের প্রশ্রয় দেয়।হেলমেট এখন ট্রাফিক পুলিশ থেকে বাচাঁর জন্য জনগন পড়ে থাকে।নিজের প্রয়োজনে হেলমেট ব্যবহার করতে হবে।