হাজিরা খাতায় স্বাক্ষর করে সরকারি কর্মচারীদের ৩ ঘন্টার কর্মবিরতি

॥ নিজস্ব প্রতিবেদক ॥

পদ ও গ্রেড পরিবর্তনের দাবিতে রাঙামাটি জেলা প্রশাসকের কার্যলয়ে চতুর্থ দিনে মত ৩ ঘন্টা কর্মবিরতি পালন করেছে উপজেলা প্রশাসন ও উপজেলা ভূমি অফিসের ১৩-১৬ গ্রেডের কর্মচারীরা। ২৩ জানুয়ারী সকাল ৯টা হতে কর্মচারীরা অফিসে এসে হাজিরা খাতায় স্বাক্ষর করে কর্মবিরতি পালন করে।৪র্থ দিনের এই কর্মসূচি যথারীতি বেলা ১২টা পর্যন্ত এই কর্মবিরতি চলে।

জেলা প্রশাসকের কার্যালয় বাংলাদেশ কালেক্টরেট সহকারী সমিতি (বাকাসস) এর কেন্দ্রীয় কমিটির নির্দেশে এই কর্মবিরতি পালন করা হচ্ছে। বিভাগীয় কমিশনার, জেলা প্রশাসকের কার্যালয়, উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয় ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) এর কার্যালয়ে কর্মরত ৩য় শ্রেণির কর্মচারীদের পদের বেতনস্কেল ও পদনাম পরিবর্তনের দাবিতে বাংলাদেশ কালেক্টরেট সহকারী সমিতি (বাকাসস) দীর্ঘদিন ধরে এই আন্দোলন করে আসছে। বিভিন্ন সময়ে প্রধানমন্ত্রী, সচিব, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়, বিভাগীয় কমিশনার ও জেলা প্রশাসক বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করা হয়েছে মর্মে কর্মচারীগণ জানান।

২০১১ ও ২০১৪ সালে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নীতিগত অনুমোদন থাকা সত্ত্বেও এ বিষয়ে উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষ নানা প্রকার আশ্বাস প্রদান করলেও দাবি দাওয়া বাস্তবায়নের কোন অগ্রগতি না হওয়ায় বাংলাদেশ কালেক্টরেট সহকারী সমিতি (বাকাসস) কঠোর আন্দোলনের ডাক দিয়েছে।

কর্মবিরতি পালনরত কর্মচারীরা জানান, যেখানে দেশের প্রত্যেকটা সরকারি কার্যলয়ে একই শিক্ষাগত যোগ্যতা এবং বেতন গ্রেড নিয়ে চাকরিতে প্রবেশ করে সেখানে অন্যান্য সব কার্যলয়ের কর্মীদের পদন্নোতির সাথে সাথে তাদের বেতন গ্রেড পরিবর্তন হলেও বঞ্চিত হচ্ছে বাংলাদেশ কালেক্টরেট কর্মীরা। তারা যোগ করেন, স্বাধীনতার পর থেকে জেলা প্রশাসকের কার্যলয় এবং বিভাগীয় কার্যলয় হলো দেশের সবচেয়ে পুরোনো কার্যলয় তবুও তারা এমন বঞ্চনার শিকার হচ্ছেন। তাদের কর্ম জীবনের শুরু থেকে শেষ কর্মদিবস পর্যন্ত এক পদবি এবং এক বেতন গ্রেড দিয়েই তাদের কর্মজীবন শেষ করতে হয়। তারা আরো জানান, তাদের এই আন্দোলন সরকার বিরোধী বা প্রশাসন বিরোধী নয়, তারা শুধু মাত্র প্রধানমন্ত্রীকে জানান দেয়ার জন্যে এই কর্মবিরতি আন্দোলন করছেন।