পাহাড়ের উন্নয়ন চাহিদা জানতে আজ রাঙামাটিতে আসছেন দুই মন্ত্রী

॥ আলমগীর মানিক ॥

পাহাড়ে বর্তমান সরকারের চলমান উন্নয়ন কর্মকান্ড পরিদর্শনসহ অত্রাঞ্চলের মানুষের প্রয়োজনীয়তার তথ্য সরাসরি জানতে সরকারের দুইজন মন্ত্রী আজ পার্বত্য চট্টগ্রামের দুই জেলা সফরে আসছেন। বৃহস্পতিবার দুপুরে রাঙামাটিতে এসে ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠি মিলনায়তনে এখানকার ৩ পার্বত্য জেলার ২৬ উপজেলার উপজেলা চেয়ারম্যান, ৭ পৌরসভার মেয়র, এবং ১২২ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানদের সাথে মতবিনিময় সভায় মিলিত হবেন স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম ও পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী বীর বাহাদুর ঊশৈসিং এমপি।

স্থানীয় সরকার বিভাগের সিনিয়র সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ এবং সংশ্লিষ্ট ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা মন্ত্রীর সফরসঙ্গী হিসেবে থাকার কথা রয়েছে। সরকারীভাবে দুইদিনের সফরে মন্ত্রী ৬-৭ ফেব্রুয়ারি খাগড়াছড়ি, রাঙামাটি ও কক্সবাজার যাবেন।

বৃহস্পতিবার মন্ত্রী প্রথমে ঢাকা থেকে খাগড়ছড়ি যাবেন। সেখানে কুমিল্লা টিলায় খাগড়ছাড়ি পৌরসভা কর্তৃক বাস্তবায়িত বঙ্গবন্ধু আবাসন প্রকল্প উদ্বোধন ও স্যানিটারি ল্যান্ডফিল, ২টি রাস্তার নির্মাণ কাজের উদ্বোধন ও খাগড়াছড়ি পৌর কেন্দ্রীয় কবরস্থানের ভিত্তিপ্রস্তুর স্থাপন করবেন এবং আরামবাগ এলাকায় পৌর আদর্শ বিদ্যালয় পরিদর্শন শেষে খাগড়াছড়ি পৌর কার্যালয়ে অংশীজনদের সাথে মতবিনিময় সভায় মিলিত হবেন।

পরে দুপুরে মন্ত্রী খাগড়াছড়ি থেকে রাঙামাটি আসবেন এবং সেখানে ৩ পার্বত্য জেলার ২৬ উপজেলার উপজেলা চেয়ারম্যান, ৭ পৌরসভার মেয়র, এবং ১২২ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানদের সাথে মতবিনিময় সভায় মিলিত হবেন।

বৃহস্পতিবার বিকেলেই মন্ত্রী রাঙামাটি থেকে কক্সবাজার যাবেন এবং সন্ধ্যায় কক্সবাজার সার্কিট হাউসে উন্নয়ন সহযোগী ও দাতা সংস্থার প্রতিনিধিদের সাথে কক্সবাজার জেলার উন্নয়ন কার্যক্রম নিয়ে মতবিনিময় সভা এবং হোটেল কক্স টুডে-তে কক্সবাজার জেলার উন্নয়ন কার্যক্রম নিয়ে স্থানীয় সংসদ সদস্য, জনপ্রতিনিধি ও সরকারি কর্মকর্তাদের সাথে মতবিনিময় করবেন।

পরদিন শুক্রবার মন্ত্রী কক্সবাজার রোহিঙ্গা ক্যাম্পে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংক ও অন্যান্য দাতা সংস্থার অর্থায়নে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর (এলজিইডি) এবং জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর (ডিপিএইচই) কর্তৃক বাস্তবায়নাধীন বিভিন্ন উন্নয়নমূলক প্রকল্প পরিদর্শন করবেন। এসময় তিনি মধুছড়া, কুতুপালং এবং রোহিঙ্গা ক্যাম্প এলাকার পানি সরবরাহ প্রকল্প, রাস্তা, ফুড ডিস্ট্রিবিউশন সেন্টার প্রভৃতি পরিদর্শন করবেন বলে জানাগেছে।