বান্দরবানে ৩ দফা অভিযানে বিপুল পরিমান পপিক্ষেত ধ্বংস

॥ থানচি প্রতিনিধি ॥

পর্যটন শিল্পখ্যাত এবং দৈনিক শত শত পর্যটক ভ্রমনে অব্যাহত অঞ্চল বান্দরবানে থানচি উপজেলা গহিন অরন্যে নিষিদ্ধ গাজা/পপি চাষ করেই যাচ্ছে । আইন শৃংঙ্খলা বাহিনী বিজিবি গত কয়েকদিনে অভিযানে বিপুল পরিমান নিষিদ্ধ গাজ্জা/পপিক্ষেত ধ্বংস করা হয়েছে । এবারে বান্দরবান-থানচি সড়কে পাশ্বে লোকালয়ের পাশ্বেই নিষিদ্ধ গাজ্জা/পপিক্ষেত সংন্ধান ও অভিযানে বিপুল পরিমানে ধ্বংস করা হয়েছে বিজিবি । ১৭ ই ফেব্রুয়ারী ২০২০ সোমবার সকাল ১০টা উপজেলা বলিপাড়া ইউনিয়নের ৬ নং ওয়ার্ডে দিংতে পাড়া ঝিড়িতে প্রায় ৩ একর পাহাড়ী জমিতে নিষিদ্ধ গাজ্জা/ পপিক্ষেত ধ্বংস করছে ।

বিজিবি সূত্রে জানা গেচ্ছে গোপন সংবাদে ভিক্তিতে বিজিবি ৩৮ ব্যাটালিয়ান বিগত ১১ /১৬ ফেব্রুয়ারী থানচি উপজেলা ২ নং তিন্দু ইউনিয়নের কাইক্য খুমি পাড়া ও কোঅং খুমি পাড়া দুইটিতে প্রায় ৯ একর জমিতে নিষিদ্ধ গাজ্জা/পাপিক্ষেত ধ্বংস করেছে ১৭ ই ফেব্রুয়ারী সোমবার দিনব্যাপী অভিযান চালিয়ে বলিপাড়া ইউনিয়নের থানচি বান্দরবান সড়কের পাশ্বে থানচি উপজেলা সদর হতে ৮কিঃমিঃ দুরত্বে প্রশাসনে নাকে ডগায় দিংতে ম্রো পাড়া নামক স্থানের প্রায় ৪ এক জমিতে নিষিদ্ধ গাজ্জা/ পপিক্ষেত ধ্বংস করেছে বলে দাবী করেছেন বিজিবি । বিজিবি প্রায় তিন দফা অভিযান পরিচালনা করেন তিন্দুমূখ সিওপি ক্যাম্পের অধিনায়ক নায়েক সুবেদা মোঃ মোখলেছুর রহমান এবং ৩৮ ব্যাটালিয়ান সদর দপ্তর হতে হাবিলদার মোঃ শাহজাহান আলী খন্দকার টহল দলের নেতৃত্ব দেন । তিন দফা অভিযানে প্রায় ১৩ একর জমিতে নিষিদ্ধ গাজ্জা/পপিচাষের সন্ধান পাওয়া হলেও এই পর্যন্ত কাউকে আটক করতে পারেনি।

৩৮ ব্যাটালিয়ান বলিপাড়া জোন বিজিবি সদর দপ্তরে জোনাল কমাল্ডিং অফিসার লেঃ কর্নেল মোহাম্মদ সানবীর হাসান মজুমদার জানান, সীমান্তে সার্বভৌমত্ব রক্ষা, প্রত্যন্ত অঞ্চল ও পার্বত্য চট্টগ্রামে শান্তি প্রতিষ্ঠার সকল সম্প্রদায়ের সম্প্রীতি ও সম্পর্ক উন্নয়ন এবং অভ্যন্তরীণ আইন শৃংঙ্খলা রক্ষা অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার, সন্ত্রাস দমন. মাদক নিয়ন্ত্রনের সরকারের পক্ষে নিরলসভাবে বিজিবি কাজ করে যাচ্ছে । এরই ধারাবাহিকতায় অসাধু মাদক ব্যবসায়ীদের মাধ্যমে নিষিদ্ধ গাজ্জা/পপিচাষ এবং গাজ্জা/পপিক্ষেত ধ্বংস করে এলাকা শান্তি ফিরেয়ে আনা ব্যবস্থা করা হয়েছে এবং এ অভিযান অব্যাহত থাকবে ।