চাকুরি দেয়ার নামে অর্থ আত্মসাৎ: কাপ্তাইয়ে আ:লীগের ২ নেতা বহিস্কৃত

॥ নিজস্ব প্রতিবেদক ॥

পুলিশে চাকুরি প্রদানের প্রতিশ্রুতি দিয়ে সাড়ে ৭ লাখ টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগে দলীয় পদ-পদবী হারালেন ক্ষমতাসীন আওয়ামীলীগের দুই নেতা। ইতিমধ্যেই সোমবার রাতে উক্ত দুই নেতাকে বহিস্কার করেছে কাপ্তাই উপজেলা আওয়ামীলীগ।

বহিস্কৃত নেতাদ্বয় হলেন কাপ্তাই উপজেলাধীন ২নং রাইখালী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মংক্য মারমা ও সাবেক যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক বিপ্লব মারমা। উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অংসুইছাইন চৌধুরী ও সাধারণ সম্পাদক ইব্রাহিম খলিলের যৌথ স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বহিষ্কারাদেশের তথ্য জানানো হয়।

এতে বলা হয়েছে, ২০১৯ সালের ২৯ নভেম্বর রাইখালী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক থোয়াই প্রু মারমা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সম্পাদক বরাবরে মংক্য মারমার বিরুদ্ধে অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ দাখিল করেন। অভিযোগে তিনি জানান, পুলিশ কনস্টেবল পদে চাকরি পাইয়ে দেবেন বলে অভিযুক্ত দুই আওয়ামী লীগ নেতা নগদ সাড়ে ৭ লাখ টাকা গ্রহণ করেন।

এ বিষয়ে সমাধানের জন্য গত বছরের ১১ডিসেম্বর অভিযুক্তরা এক বৈঠকে অর্থ কেলেঙ্কারির কথা স্বীকার করেন এবং আগামী দুই মাসের মধ্যে অভিযোগকারির পাওনা সম্পূর্ণ টাকা ফেরত দেওয়ার অঙ্গীকার করেন। কিন্তু যথাসময়ে টাকা ফেরত দিতে ব্যর্থ হলে উপজেলা আওয়ামীলীগকে বিষয়টি জানানো হয়। পরে উপজেলা আওয়ামী লীগ তাদের পদ-পদবীসহ প্রাথমিক সদস্য পদ থেকে বহিষ্কার করেন।

এদিকে, বহিষ্কারাদেশ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে মংক্য মারমা বলেন, ‘বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত আমার বিরুদ্ধে রাজনৈতিক ষড়যন্ত্র। আমি অভিযোগকারীর কাছ থেকে টাকা নিয়েছি, এরকম কোনো প্রমাণ নেই।’ আরেক অভিযুক্ত বিপ্লব মারমাও তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ ভিত্তিহীন বলে দাবি করেছেন।