একটি সেচ বাঁধ চায় চুমাচুমি মুখ পাড়ার কৃষকেরা

॥ স্মৃতিবিন্দু চাকমা ॥

জুরাছড়ি উপজেলার ১নং ইউনিয়নের চুমাচুমি মুখ পাড়ায় একটি সেচ বাধঁ নির্মিত করা গেলে মৎস্য চাষ,হাসঁ পালন সহ কৃষকদের প্রায় ১৫ একর ধান্য জমি চাষের সুবিধা হবে। এছাড়াও উক্ত বাধেঁর ফলে মাছ চাষ করে অর্থনৈতিকভাবে লাভবান হওয়ার সম্ভাবনাসহ বিশাল আকারে জলাশয় সৃষ্টি হবে।

জমির মালিক বিমল্যা চাকমা জানান, প্রতিবছর আমাদের জমিতে এই সময়ে বিল আকারে কিছু পানি জমাট বেধে থাকে। এ বিল থেকে আমরা সকলে মিলে সেচ পাম্প দিয়ে ধান্য জমিতে পানি সংগ্রহ সহ প্রতিবছর প্রায় একলক্ষ টাকার মত মাছও বিক্রি করে থাকি।

১নং ইউপি চেয়ারম্যান ক্যানন চাকমা জানান, বিষয়টি আমার অবগত রয়েছে চুমাচুমি মুখ পাড়ায় কৃষকদের সুবিধার্তে যদি সেচ বাধঁটি নির্মান করা যায়, তাহলে এরা একটি দিকে আর্থিকভাবে লাভবান হবে, অন্যদিকে সেচ পাম্প দিয়ে এদের যে অর্থ প্রয়োজন হয় তা থেকে মুক্তি পাবে।

জুরাছড়ি উপজেলা চেয়ারম্যান সুরেশ কুমার চাকমা জানান, জনগণ আমাকে ভোট দিয়েছে এলাকার উন্নয়ন করার জন্য, তাই কৃষকদের সুবিধার্তে আমাদের অনেক উন্নয়নের পরিকল্পনা রয়েছে, কৃষকেরা যাহাতে অর্থনৈতিকভাবে লাভবান হতে পারেন সেজন্য যা যা করণীয় পর্যায়ক্রমে সবকিছু করে দেওয়া হবে এমন আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।

উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মৃণাল কান্তি চাকমা থেকে জানতে চাইলে তিনি বলেন, বিষয়টি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ, এই বাধঁটি যদি নির্মান করা যায় তাহলে এক দিকে উক্ত পাড়ার কৃষকেরা মাছ চাষে আগ্রহী হয়ে উৎবে এবং জলাশয় সৃষ্টি করে হাসঁ পালনে উৎসাহী হয়ে নিজেদের ধান্য জমিতে ও অনায়াসে পানি সংগ্রহ করতে পারবে। এ বিষয়ে উপজেলা পরিষদকে অবহিত করা হবে এবং বাধঁটি যাহাতে নির্মাণ করা যায় সেজন্য উপজেলা পরিষদের সার্বিক সহযোগিতা কামনা করেন।