ব্রেকিং নিউজ

বান্দরবানে অজ্ঞাত রোগে আক্রান্ত ৮ পরিবারঃ ১ শিশুর মৃত্যু!

॥ বান্দরবান প্রতিনিধি ॥

বান্দরবান পার্বত্য জেলার লামা সদর ইউনিয়নের ৮নং ওয়াডের পুরাতন লাইল্যা মুরুং পাড়ার ৮ পরিবারের প্রায় ৪৫ জন নারী, শিশু ও পুরুষ অজ্ঞাত রোগে আক্রান্ত হয়ে পড়েছে। ইতিমধ্যে গত শুক্রবার এই রোগে আক্রান্ত হয়ে দুতিয়া মুরুং (৭) নামে এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। সে পাড়ার মেনহাত মুরুং এর ছেলে ও পাড়ার প্রধান লাতুং কারবারীর নাতি।

লাতুং কারবারী বলেন, কয়েকদিন যাবৎ আমাদের পাড়ার প্রতি ঘরে ৩/৪ জন নারী পুরুষ অসুস্থ হয়ে পড়েছে। সবার গায়ে গুটি উঠেছে, প্রচন্ড জ্বর ও সাথে খুব কাশি রয়েছে। পাড়ায় মোট ৮টি পরিবার আছে। সব ঘরের লোক অসুস্থ হয়েছে। অসুস্থরা খাওয়া দাওয়া বন্ধ করে দিয়েছে। এই অজানা রোগে আমার নাতি দুতিয়া মুরুং মারা গেছে।

এই বিষয়ে লামা উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ মোহামুদুল হক এর সাথে কথা হয়। তিনি বলেন, আমরা দ্রুত ঐ পাড়ায় স্বাস্থ্য কর্মী পাঠাচ্ছি। তাদের চিকিৎসার ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। আগামী ১৯ তারিখ হতে সমগ্র লামা উপজেলায় হাম/রোবেলা রোগের টিকা দেয়া হবে। আমাদের ধারনা এই রোগটি হাম হতে পারে। বছরের এই সময় হামের প্রাদুর্ভাব দেখা দেয়।

এদিকে হাম ও রুবেলা রোগ প্রতিরোধে টিকাদান ক্যাম্পেইন নিয়ে বান্দরবানে স্বাস্থ্য বিভাগের আয়োজনে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। সকালে বান্দরবানে কর্মরত সাংবাদিকদের নিয়ে জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয়ের হলরুমে এই সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

এসময় বান্দরবানের সিভিল সার্জন ডা:অংশৈপ্রু মারমা জানান, হাম ও রুবেলা একটি মারাত্মক ব্যাধি। প্রতিবছর এই রোগে দেশে অসংখ্য শিশু আক্রান্ত হয় আর এই হাম ও রুবেলা রোগ থেকে মুক্তি পেতে আমাদের ৯ মাস থেকে ১০ বছরের কমবয়সী সকল শিশুদের টিকা দিতে হবে। এসময় সিভিল সার্জন আরো জানান, এবছর ১৮ মার্চ বান্দরবানে এই হাম ও রুবেলা রোগ প্রতিরোধে সরকারিভাবে বিনামুল্যে টিকাদান কর্মসুচী শুরু হবে এবং ১১এপ্রিল এই টিকাদান ক্যাম্পেইনের সমাপ্তি ঘটবে।

জেলা স্বাস্থ্য বিভাগের তথ্যমতে,এবারে বান্দরবান জেলায় ৯ মাস থেকে ১০ বছরের কমবয়সী ১লক্ষ ১৭ হাজার ৫০০জন শিশুকে এই টিকাদান কর্মসুচীর আওয়তায় আনা হবে এবং পুরো জেলায় ৫ জন সদস্য বিশিষ্ট গ্রুপ ভাগ হয়ে ১শত ৭০ টি টিম কাজ করবে।

সংবাদ সম্মেলন এসময় বান্দরবানের সিভিল সার্জন ডা:অংশৈপ্রু মারমা, ডেপুটি সিভিল সার্জন মং টিং ঞো,মেডিকেল অফিসার ডা: মো:আলমগীর, ডা:মো:সুববীর রহমান, সিভিল সার্জন কার্যালয়ের সিনিয়র শিক্ষা ও স্বাস্থ্য কর্মকর্তা সা সুই চিং, প্রেসক্লাবের সভাপতি মনিরুল ইসলাম,সাধারণ সম্পাদক মিনারুল হক, বিশেষজ্ঞ ডাক্তার ও জেলায় কর্মরত বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সংবাদকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।