ব্রেকিং নিউজ

খাগড়াছড়িতে পর্যটক আগমণে নিষেধাজ্ঞা!

॥ আল-মামুন ॥

খাগড়াছড়ি ভ্রমনে বিদেশী পর্যটকে নিষেধাজ্ঞার কথা জানিয়েছে খাগড়াছড়ি জেলা প্রশাসন। করোনা ভাইরাস থেকে নিরাপদ রাখার স্বার্থে একই সাথে দেশী পর্যটকদের খাগড়াছড়িতে ভ্রমনের ক্ষেত্রে নিরুৎসাহিত করা হচ্ছে ভ্রমণে। বুধবার(১৮ মার্চ) দুপুরে নিজ কার্যালয়ে সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে এই কথা বলেন জেলা প্রশাসক প্রতাপ চন্দ্র বিশ্বাস।

কোন বিদেশী পর্যটকদের খাগড়াছড়ি ভ্রমনের অনুমতি আপাাতত দেওয়া হচ্ছে না জানিয়ে তিনি জানান, করোনাভাইরাস মোকাবেলায় জেলা প্রশাসককে আহ্বায়ক ও সিভিল সার্জনকে সদস্য সচিব করে ১১ সদস্য বিশিষ্ট একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। উক্ত কমিটি করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় জাতীয় কমিটির নির্দেশনা মোতাবেক কাজ করবে।

করোনা ভাইরাস যেহেতু সংক্রামক তাই দেশের সার্বিক অবস্থা বিবেচনা করে এই সময়ে যাতে পর্যটকরা খাগড়াছড়িতে না আসেন সে বিষয়ে জেলা প্রশাসক প্রতাপ চন্দ্র বিশ্বাস বলেন, জনস্বার্থে ও নিজের স্বার্থে আপাতত ভ্রমন থেকে বিরত থাকায় উত্তম বলে তিনি মন্তব্য করেন।

জেলা প্রশাসক আরো বলেন, খাগড়াছড়ির কোন নাগরিক যদি বিদেশ থেকে আসে তাহলে তাকে অবশ্যই হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে। তারা হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকছে কিনা সেটি আমরা মনিটরিং করবো। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধের সময় শিশুদের বাসায় রাখার পাশাপাশি প্রয়োজন ছাড়া ঘর থেকে বের হওয়ার ক্ষেত্রে নিরুৎসাহিত করছে স্বাস্থ্য বিভাগ।

পুরো জেলায় ৮০টি আইসোলেশন বেড প্রস্তুত রাখা হয়েছে। এরমধ্যে খাগড়াছড়ি জেলা সদর হাসপাতালে ৩০ বেড এবং অন্য উপজেলাগুলোতে মোট ৫০ বেড প্রস্তুত রাখা হয়েছে। খোলা হয়েছে কন্ট্রোল রুম। এদিকে ভারত ফেরত ৫জনকে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে।

খাগড়াছড়ির ডেপুটি সিভিল সার্জন মিটন চাকমা জানান, খাগড়াছড়ি একটি পর্যটন এলাকা। তাছাড়া ঢাকা-চট্টগ্রাম থেকেও মানুষ যাতায়াত রয়েছে বেশ। তাই খাগড়াছড়ির করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হওয়াটা উড়িয়ে দেয়া যাচ্ছেনা। একমাত্র স্থানীয়দের সচেতনা করোনা থেকে নিরাপদ রাখতে পারে। বিদেশ থেকে আসা খাগড়াছড়ির নাগরিকদের প্রথমে হাসপাতালে আসার আহ্বান জানান তিনি।