প্রবাসীদের হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকতে বান্দরবান পুলিশের মাইকিং

॥ বান্দরবান প্রতিনিধি ॥

বান্দরবানে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে বিদেশ থেকে আসা প্রবাসী নাগরিকদের বাধ্যতামূলক হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকতে জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে মাইকিং করা হচ্ছে। শুক্রবার সকাল থেকে শহরের বিভিন্নœ জায়গায় মাইকিং করে এ ঘোষনা দেয়া হচ্ছে।

এতে বলা হচ্ছে বিদেশ থেকে আসা প্রবাসী নাগরিকদের বাধ্যতা মূলক ১৫ দিন বাড়িতে কোয়ারেন্টাইনে থাকতে বলা হচ্ছে যদি কেউ এ আদেশ না মানে তবে ১ লক্ষ টাকা জরিমানা ও ৬ মাসের জেল অথবা উভয় দন্ডে দন্ডিত করা হবে। গত দুইদিনে বান্দরবানে প্রবাসী নাগরিকসহ ৭ জনকে হাসপাতালে কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে এবং লামা উপজেলায় কোয়ারেন্টাইনে থাকার নিয়ম না মানায় একজনকে ৫হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার থেকে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে বান্দরবানের সব পর্যটন স্পট বন্ধ ঘোষনা করেছে জেলা প্রশাসন এমনকি জেলার আবাসিক হোটেল গুলোতে কাউকে রুম ভাড়া না দেয়ার জন্য পুলিশের পক্ষ থেকে নিষেধ করা হয়েছে।

এদিকে করোনা আতঙ্কে বুধবার থেকে বান্দরবান বাজারে নিত্য প্রয়োজনীয় সব দ্রব্যের দাম বাড়িয়ে দিয়েছে ব্যবসায়ীরা। বাজারের বিভিন্ন খুচরা দোকান ঘুরে দেখা গেছে চালের দাম বেড়েছে প্রতি বস্তায় ৩ শ থেকে ৪ শ পিয়াজের দাম ১০ থেকে ১৫ টাকা সবজির বাজারেও একই অবস্থা মুরগির দাম বেড়েছে ৫০ টাকা। এতে ভোগান্তিতে পড়েছে সাধারণ জনগণ। বাজারে আসা ক্রেতারা জানান করোনা ভাইরাসের কারণে বাজারে প্রতিটা জিনিষ এর দাম বেশী নেয়া হচ্ছে পিয়াজ মঙ্গলবারে কিনেছি ৪০ টাকা দিয়ে আজ শুক্রবারে কিনতে হচ্ছে ৭০ টাকা দিয়ে চালের বস্তা ছিল ১৮০০ টাকা আজ কিনতে হচ্ছে ২২০০ এছাড়াও মাছ মাংস সবজি সব কিছুই বাড়তি দাম প্রশাসনের তদারকি করা দরকার না হলে আমরা সাধারণ মানুষ বিপদে পড়ে যাবো।

জেলা প্রশাসক দাউদুল ইসলাম বলেছেন, বাজারে দ্রব্য মূল্যের দাম নিয়ন্ত্রণ রাখতে আমরা সার্বক্ষণিক তদারকি করছি মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করছি জরিমানা করছি এবং কেউ যদি অভিযোগ করে নির্দিষ্ট দোকানের ব্যাপারে আমরা তাদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা গ্রহণ করব।