ব্রেকিং নিউজ

ত্রাণের নাগাল পায়নি সিলেটি পাড়ার খেটেখাওয়া মানুষগুলো

॥ নিজস্ব প্রতিবেদক ॥

রাঙামাটি পৌরসভার ৫নং ওয়ার্ডের আওতাধীন সিলেটি পাড়া এলাকায় পাহাড়ি বাঙালী মিলে প্রায় ১হাজার মানুষের বসবাস। যাদের সিংহভাগই মৎস্য শিকারের মাধ্যমে জীবিকা নির্বাহ করে। বর্তমানে নভেল করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ আটকাতে সরকারের নির্দেশনায় অঘোষিত লকডাউন অবস্থায় রয়েছে পার্বত্য জেলা রাঙামাটিও। আর এই পরিস্থিতিতে উক্ত এলাকার খেটে খাওয়া মানুষরা কাপ্তাই হ্রদে মাছ ধরে ও বিক্রি করতে না পারায় অসহায় অবস্থায় দিনযাপন করছে। এদিকে রাঙামাটি বিভিন্ন এলাকায় প্রশাসন, রাজনৈতিক দল, বিত্তবান ও সেচ্ছাসেবীরা ত্রাণ বিতরণ করলেও এলাকায় কেউ এখন পর্যন্ত ত্রাণ সহায়তা পায়নি।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক এলাকাবাসী বলেন, আমরা দূর্গম এলাকায় বসবাস করি বলে সবসময়ই সরকারি সুযোগ সুবিধা থেকে বঞ্চিত হয়ে আসছি। ব্যক্তিপর্যায়েও আমরা তেমন সুযোগ সুবিধা পাইনি। কিন্তু নির্বাচন আসলে অনেকেই ভোট চাইতে আসেন, প্রতিশ্রুতিও দিয়ে যান কিন্তু নির্বাচনের পর তাদের আর দেখতে পাওয়া যায় না। এখন আমাদের পকেটে টাকা নেই ঘরে চাউল নেই এই পরিস্থিতিতেও আমরা কোন সাহায্য সহযোগীতা পাচ্ছি না। এমন মনে হচ্ছে করোনা ভাইরাসের আগে হয়ত বউ-বাচ্চা নিয়ে না খেয়ে মারা যেতে হবে। সরকারের কাছে আমার একটাই আবেদন আমাদেরকে বাঁচতে সহায়তা করুন।

উক্ত বিষয়ে ৪, ৫, ৬নং সংরক্ষিত মহিলা আসনের মহিলা কাউন্সিলর সোমা বেগম পূর্ণিমার সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করলে তিনি জানান, ইতিমধ্যে পৌরসভার পক্ষ থেকে ২টি কার্ড সিলেটি পাড়ার দুইজনকে দিয়েছি আগামী বুধবার/বৃহস্পতিবারের দিকে আরো ১০জন সহায়তা পাবে। তিনি আরো বলেন, ধাপে ধাপে ঐ এলাকার দুস্থদের মাঝে আরো ত্রাণ দেয়া হবে।