ব্রেকিং নিউজ

হয়তো করোনায় নাহয় অনাহারে, ভাগ্যে কি আছে রাঙামাটি শহরের ‘পাগল’দের?

॥ মাসুদ পারভেজ নির্জন ॥

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে রাঙামাটিতে সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিতে সরকারি নির্দেশনায় অঘোষিত লকডাউনে অভুক্ত দিন কাটাচ্ছে শহরের মানসিক ভারসাম্যহীন বা সমাজের ভাষায় ‘পাগল’রা। লকডাউন পূর্ববর্তী সময়ে মানবিকতার টানে যা একটু আধটু সমাজের দয়ায় অন্ন, বস্ত্র পেত বিশ্বের এ দূর্যোগময় পরিস্থিতিতে তাও বন্ধ হয়ে গেছে।

রাঙামাটি শহর ঘুরে দেখা মেলে ১০ থেকে ১২ জন মানসিক ভারসাম্যহীনের। যাদের পরনে ছেঁড়া ফাটা পোশাক চুল উষ্কখুষ্ক, প্রখর রোদে খোলা আকাশের নিচে সড়কের পাশে বা পরিত্যক্ত নোংরা পরিবেশের মধ্যেই মানবেতর জীবন কাটাচ্ছে তারা। যারা আগে মানুষের সহানুভূতি পেত করোনা আতঙ্কে তা এখন মোটেও নেই। সরকারী বিধি নিষেধের আওতায় সকলে যখন বাসায় সুরক্ষিত জীবনযাপন করছে তখন এদের জীবন কাটছে অনাহারে। এদিকে নোংরা জীবনযাপনের কারণে সবচেয়ে বেশি করোনা আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকিতে আছে এরাই, তাই জনসাধারণও পুরোপুরি ভাবে এড়িয়ে চলছে ফুটপাতে আশ্রিত এ সকল মানসিক ভারসাম্যহীনদের।

সরকার, স্থানীয় রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন, স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরাসহ বিত্তবানেরা সমাজের দুস্থ ও নিন্মআয়ের মানুষের জীবন বাঁচাতে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিলেও সমাজের সবধরনের সুবিধাবঞ্চিত এ সমস্ত মানসিক ভারসাম্যহীনরা পাচ্ছেনা এক মুঠো খাবার। তাই স্বাভাবিকভাবেই প্রশ্ন জাগে “ভাগ্যে কি লিখা আছে এইসব পাগলদের?”