ব্রেকিং নিউজ

বরকলে ২৬২ কর্মহীন পরিবারে খাদ্যশষ্য পৌছে দিয়েছে রাঙ্গামাটি জেলা পরিষদ

॥ নিজস্ব প্রতিবেদক ॥

পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অর্থায়নে করোনা ভাইরাসের প্রাদূর্ভাবে বিপর্যপ্ত দুঃস্থ ও অসহায় মানুষের পাশে থেকে ঘরে ঘরে খাদ্য পৌছে দিচ্ছেন রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ।

বুধবার (০১ এপ্রিল) এরই অংশ হিসেবে রাঙ্গামাটি দূর্গম বরকল উপজেলার সুভলং বাজার ও বরকল সদর বাজারে পৃথক ভাবে ৫টি ইউনিয়নের ২৬২টি অসহায় পরিবারের মাঝে খাদ্য সামগ্রীগুলো বিতরণের জন্য ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও স্থানীয় দরিদ্রদের হাতে ৬কেজি চাল, ১কেজি ডাল, ১লিটার তেল, ১কেজি লবন, ১কেজি আলু, সাবান’সহ নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্য সামগ্রী তুলে দেন রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ সদস্য রেমলিয়ানা পাংখোয়া এবং রাঙ্গামাটি জেলা পরিষদের প্রাক্তন সদস্য ও বরকল উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক সবির কুমার চাকমা।

খাবার বিতরণকালে সুভলং সেনা ক্যাম্পের ক্যাম্প কমান্ডার ক্যাপ্টেন মোঃ আমিনুর, বরকল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ জসিম উদ্দিন, সুভলং ইউনিয়ন পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান মধু মিলন চাকমা, ভুষনছড়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মোঃ মামুনুর রশিদ মামুন, ৩নং আইমাছড়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান অমর কুমার চাকমা’সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দরা উপস্থিত ছিলেন।

খাদ্য বিতরণকালে রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের প্রাক্তন সদস্য সবির কুমার চাকমা বলেন, দেশের এই ক্রান্তি লগ্নে জনগনের পাশে দাঁড়ানোই হচ্ছে সকলের মহান দায়িত্ব এই দায়িত্ব সঠিক ভাবে পালন করে আমাদের এগিয়ে যেতে হবে। তিনি বলেন, সরকার কর্মহীন মানুষের জন্য খাদ্যশষ্যের ব্যবস্থা করেছে। এই খাদ্যশষ্য গুলো যাতে সকলের ঘরে ঘরে পৌছে যায় তার জন্য রাঙ্গামাটি জেলার ৫০ টি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মেম্বারদের কাছে পৌছে দিচ্ছে জেলা পরিষদের পক্ষ থেকে। কারন উপজেলা প্রশাসন সেনাবাহিনী’সহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান এই খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করছে। যাতে কেউ বার বার পাবে কেউ একবারও পাবে না এটা যাতে না হয়। তার জন্য ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মেম্বারদের একটু দায়িত্ব নিয়ে কাজ করার আহবান জানান তিনি। তিনি আরো বলেন, ‘এটা নিয়ে আতঙ্কিত না হয়ে আমাদের সবাইকে সচেতন ও সতর্ক হতে হবে। আসুন আমরা সবাই মিলে স্বাস্থ্য সচেতনতা মেনে সতর্কতার সঙ্গে করোনাভাইরাস রোধ করি। সরকারি নির্দেশ মেনে যার যার বাসায় অবস্থান করে এবং দূরত্ব মেনে চলে সবাই সুস্থ থাকি, পরিবার নিয়ে ভালো থাকি।

রাঙ্গামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ সদস্য রেমলিয়ানা পাংখোয়া বলেন, সারা বিশ^ আজ একটি ভাইরাসের কারণে স্তব্ধ হয়ে আছে। কে ধনী, কে গরীব এটা কোন ভেদাভেদ নেই। সকলের জন্য এই রোগ সমান। এই রোগের প্রধান ঔষুধ হচ্ছে নিজে নিরাপদে থাকা অন্যকে নিরাপদে রাখা। তাই কোন ভাবেই জন সমাগম নয়। জনসমাগম এরিয়ে চলার জন্য সরকার সাধারণ ছুটি ঘোষণা করেছে। যাতে কোন লোকজন বাড়ীঘর থেকে বের না হয়। সরকার সকলের বাড়ী বাড়ী খাদ্যসামগ্রী পৌছে দিবে। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশেই আমরা মাঠে নেমেছি। প্রতিটি জনগনের বাড়ী বাড়ী যাতে খাদ্যশষ্য পৌছে যায় তার জন্য ইউনিন পরিষদ চেয়ারম্যান ও মেম্বারদের কাজ করতে হবে। তিনি সকলকে নিজ নিজ দুরত্ব বজায় রেখে নিজ বাসাবাড়ীতে থাকার জন্য অনুরোধ জানান। তবে সাধ্য অনুসারে এ কার্যক্রম অব্যহত থাকবে বলেও তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।