ব্রেকিং নিউজ

আসামবস্তির বিচ্ছিন্ন দ্বীপে পৌঁছেনি ত্রাণ

॥ নিজস্ব প্রতিবেদক ॥

রাঙামাটির ৫ নং ওয়ার্ডস্থ্ আসামবস্থি ব্রীজ সংলগ্ন তৌফায়েল আহাম্মেদ পাড়া বিচ্ছিন্ন দ্বীপ হওয়ার দরুণ ঐ এলাকার জেলে ও দিন মজুরের মোট ১৭ টি পরিবার কোনো সরকারি, জনপ্রতিনিধি ও ব্যক্তিগত উদ্যোগে বিতরণ করা কোনো প্রকারের ত্রাণের ছোঁয়া পায়নি বলে অভিযোগ করেছেন উক্ত এলাকার বাসিন্দারা।

তৌফায়েল আহাম্মেদ পাড়ায় বসবাসরত জেলে মোঃ জাহাঙ্গীর আবেগ আপ্লুত হয়ে বলেন, কাপ্তাই লেকে প্রতিদিন মাছ ধরে আমার সংসার চলে। সারা দেশের মত রাঙামাটিতেও করোনা ভাইরাসের কারণে আমরা গৃহবন্দী। বিভিন্ন জন থেকে শুনেছি জেলা প্রশাসন ও পৌরসভা থেকে সরকারি বিভিন্ন ত্রাণ দেওয়া হচ্ছে কিন্তু আমরা পৌর এলাকার বাসিন্দা হওয়ার পরেও আমাদের কোনো প্রকারের ত্রাণ সমগ্রী কপালে জুটেনি। আমাদের পরিবার ও বাচ্চা কাচ্চাদের নিয়ে চলতে হিমশিম খাচ্ছি, এভাবে যদি চলতে থাকে আমাদের বউ বাচ্চা নিয়ে না খেয়ে বাসায় বন্দি অবস্থায় মরতে হবে।

তিনি আরো বলেন, আমাদের এলাকায় যে ১৭ টি পরিবার আছে সবারই করুণ অবস্থা কারণ কেউ রাজমিস্ত্রি, কেউ জেলে আর কেউ কেউ দর্জি ও বিভিন্ন দিন মজুরী কাজে নিয়োজিত। আমাদের এলাকায় প্রসাশন ও জনপ্রতিনিধিরা যদি একটু সুদৃষ্টি দেয় তাহলে আমাদের এই এলাকার বাসিন্দারা উপকৃত হতো।

এই ব্যাপারে ৫ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর বাচিং মারমার সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করলে তিনি জানান, ঐ এলাকার ১৭ পরিবারের মধ্যে ৭ পরিবারের নাম আমি তালিকা যুক্ত করেছি তাদের খুব শীঘ্রই পৌরসভার পক্ষ থেকে ত্রাণ দেওয়া হবে। আর বাকি যারা আছে তাদেরকেও পর্যায়ক্রমে ত্রাণ সমগ্রী পৌঁছে দেওয়া হবে।