কাউখালীতে ইয়াবাসহ ২ যুবক আটক!

“হয় আমরা থাকবো নয় মাদক ব্যবসায়ী থাকবে!” মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর রাঙামাটি জেলা শাখা কর্তৃক দুজন মাদক ব্যবসায়ীকে ১০০ পিস ইয়াবা সহ আটক করার পর জেলা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের কার্যালয়ে বৃহস্পতিবার বিকাল ৩ টায় এক প্রেস ব্রিফিং এ মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের পরিচালক মিজানুর রহমান শরিফ একথা বলেন।

তিনি বলেন, বৃহস্পতিবার সকাল ১২ টায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রাঙামাটি জেলার কাউখালী উপজেলার সীমান্তবর্তী এলাকায় শুক্কুর হোটেল এন্ড বিরিয়ানি হাউজের সামনে থেকে দুই জন আসামীকে আটক করে দু’জনের দেহ তল্লাশি করে সর্ব মোট ১০০ পিস ইয়াবা উদ্বার করি এবং আসামীদের বিরুদ্ধে মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন ২০১৮ ধারা অনুসারে সংশ্লিষ্ট থানায় নিয়মিত মামলা দায়ের করা হয়।

তিনি আরো বলেন, বর্তমান সরকারের অন্যতম মিশন এবং ভিশন মাদক সন্ত্রাস ও দুর্নীতি মুক্ত বাংলাদেশ গড়ে তোলা। তারই অন্যতম বিষয় হচ্ছে মাদকদ্রব্য বা মাদক নির্মূলে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের যে কাজ সেটা বেগবান করে তোলা। মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর ও এনএসআই যৌথ ভাবে মাদক বিরোধী এই অভিযান শুরু করেছে। আমি মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর পক্ষ থেকে আপনাদের এ ব্যাপারে আশ্বস্ত করতে চাই মাদকের বিরুদ্ধে আমরা জিরো টলারেন্স নীতি ঘোষনা করেছি এবং দেশে হয় আমরা থাকবো নয় মাদক ব্যবসায়ীরা থাকবে। এই নীতিতে আমরা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর, এনএসআই সহ অন্যান্য সংস্থা যৌথ ভাবে আমরা এই কাজকে এগিয়ে নিয়ে যাবো। এরপাশাপাশি প্রধানমন্ত্রীর যে মাদক মুক্ত বাংলাদেশ গড়ে তোলার জিরো টলারেন্স নীতি এই নীতি অনুসরন করে আমরা এগিয়ে যাবো।

উল্লেখ্য, রাঙামাটির কাউখালীতে যৌথ অভিযানে ১০০ পিস ইয়াবাসহ দুই যুবককে আটক করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকাল ১২ টায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গোয়েন্দা বিভাগ ও মাদক নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর যৌথভাবে অভিযান অভিযান পরিচালনা করে।
সূত্র জানায়, আটককৃতরা হল পটিয়ার শান্তিরহাটের মৃত সৈয়দ আহমদের ছেলে মোঃ ইব্রাহীম (২৫) ও রাউজান রাবার বাগানের আবু তাহেরের ছেলে বিপ্লব হোসেন (২৮)। গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে কাউখালীর সীমান্তবর্তী এলাকায় শুক্কুর হোটেল এন্ড বিরয়ানী হাউজের সামনে থেকে উক্ত দুইজনকে আটক করা হয়। আটককৃতদের দেহ তল্লাশি করা হলে একজনের শরীরে ৭০ পিস ও অন্যজনের শরীরে ৩০ পিস সহ মোট ১০০ পিস ইয়াবা উদ্বার করা হয়।