মানিকছড়িতে আ.লীগ কর্মী হত্যায় জড়িত সন্দেহে দু’জন গ্রেফতার

॥ আলমগীর মানিক ॥

রাঙামাটি শহরের প্রবেশমুখ মানিকছড়িতে চা খেতে ডেকে নিয়ে ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সদস্য সাধন বিকাশ চাকমাকে হত্যার ঘটনায় দু’জনকে আটক করেছে কোতয়ালী থানা পুলিশ। আটককৃতরা হলো সেলিম (৪০) ও ধনেশ্বর চাকমা(৩৫)। নিহতের স্ত্রীর দায়ের করা হত্যা মামলায় এই দুইজনকে আটক করা হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন কোতয়ালী থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ কবির হোসেন। তিনি জানান, বুধবার মামলাটি রেকর্ড করা হয় এবং অভিযোগ প্রাপ্তির ২৪ ঘন্টার মধ্যে এজাহারনামীয় একজনসহ মোট দুইজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

গত সোমবার বিকেলে মানিকছড়ির জনৈক ছগিরের ভাড়াটিয়া ধনেশ্বর চাকমা উক্ত এলাকার অপর বাসিন্দা সাধন বিকাশ চাকমাকে চা খাওয়ানোর কথা বলে নিজ বাসায় ডেকে এনেছিলো। এরপর রাত দশটার সময় সাধনকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে রাঙামাটি জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে আসলে সেখানে চিকিৎসারত অবস্থায় মঙ্গলবার দিবাগত রাত সাড়ে চারটার সময় মারা যান তিনি।

এই ঘটনায় নিহতের স্ত্রী বাদি হয়ে কোতয়ালী থানায় মামলা দায়ের করে। দন্ড বিধি ৩০২ ও ৩৪ ধারায় দায়েরকৃত মামলা নাম্বার-৭,তারিখ: ২৪/০৬/২০২০ ইং।

জানাগেছে, নিহত সাধন বিকাশ চাকমা মানিকছড়ির সাপছড়ি ইউনিয়নের বাসিন্দা এবং স্থানীয় আওয়ামীলীগের সক্রিয় কর্মী ছিলেন। পেশায় একজন ভাসমান তরকারি বিক্রেতা সাধনের বাসায় সোমবার একটি অনুষ্ঠানে দাওয়া খেতে যায় ধনেশ্বর চাকমা ও তার পরিবার। এসময় দাওয়াত খেয়ে ফেরার পথে সাধন বিকাশ চাকমাকে চা খাওয়ার কথা বলে ধনেশ্বর তার ভাড়া বাসায় নিয়ে আসে। পরবর্তীতে রাতের বেলায় ধনেশ্বরের বাসার অদূরে সাধন বিকাশ চাকমাকে মাথা ফাটা রক্তাক্ত অবস্থায় দেখতে পেয়ে স্থানীয় এক বাঙ্গালী যুবক তার পরিবারের নিকট খবর দেয়। পরিবারের সদস্যরা তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে আসলে ভোর সাড়ে চার টার সময় তিনি চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। এই ঘটনায় মামলা হওয়ার মাত্র ২৪ ঘন্টার মধ্যেই কোতয়ালী থানা পুলিশ উক্ত ধনেশ্বরসহ এজাহারনামীয় আসামী সেলিমকে আটক করতে সক্ষম হয়।