বাবার নির্দোষিতা প্রমাণে সাংবাদিকদের সম্মুখে সন্তান

॥ শহিদুল ইসলাম হৃদয় ॥

রাঙামাটির বরকল উপজেলার ৫ নং ভূষনছড়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মোঃ মামুনুর রশিদ মামুনের বিরুদ্ধে মিত্যা মামলায় পরিবারের পাশাপাশি হয়রানির শিকার নয় বছর বয়সী মারিয়া ও তিন বছর বয়সী মাহির। অবুঝ শিশু দুজন জানেনা তাদের বাবা কি বিষয় নিয়ে মামলায় জড়িয়েছে? কি’বা এমন দোষ করেছে যার কারণে এত ক্যামেরার সম্মুখীন হতে হয়েছে তাদের।

স্ত্রীর স্বামী ও বাবার ছেলেকে এক কূচক্রি মহল পরিকল্পিত ভাবে তৈরী করা ফাঁদে ফেলতে দেখে রাষ্টের চতুর্থ স্তম্ব গনমাধ্যম কর্মীদের দারস্থ হয়ে মামুনের বিরুদ্ধে যে মামলা করা হয়েছে তা সম্পূর্ণ মিত্যা প্রমাণ কালে তাদের আর্তনাদ ও চোখের জল দেখে ইউপি চেয়ারম্যান মামুনের বড় মেয়ে মারিয়ার চোখে জল চলে আসতে দেখা গেছে।

বাচ্চা শিশুটি হয়তো-বা পরিবারের সদস্যদের চোখের জল দেখে চোখের জল ঝড়াচ্ছে কিন্তু এই অবুঝ শিশুটি জানেনা তার বাবার বিরুদ্ধে কি বষয়ে অভিযোগ উঠেছে।কি এমন কারণ? যে কারনে তার বাবার নাম এই মঞ্চে এত মানুষের সামনে বলা হচ্ছে? দুই ভাই-বোন কয়েক দিন ধরে বাবার ভালোবাসা থেকে বঞ্চিত এবং “বাবা আসছে না কেনো, বাবা কখন আসবে”? এমন প্রশ্নে রাত কাটাচ্ছে। এদিকে, মা নাসরিন আক্তারকে সাথে রাঙামাটির দুর্গম বরকল উপজেলা থেকে এসে শহরের বিভিন্ন জায়গায় বিভিন্ন মানুষের কাছে বাবার বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবি নিয়ে ও নির্দোষ প্রমান করার লক্ষে ঘুরছে মানুষের দুয়ারে দুয়ারে।

অন্যদিকে, মামুনের স্ত্রী তার স্বামীর বিররুদ্ধে আনীত সকল অভিযোগ বানোয়াট বলে দাবি করার পাশাপাশি মামুনকে ফাঁসানোর জন্য দায়ের করা ষড়যন্ত্রমূলক মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারসহ মেয়েটির গর্ভের সন্তানের ডিএনএ টেষ্টের দাবি জানিয়েছেন শনিবার দুপুরে রাঙামাটি প্রেসক্লাবে এই সংবাদ সম্মেলনে।

উলেক্ষ্য, রাঙামাটির বরকলে রাজনৈতিকভাবে হয়রানীর লক্ষ্যে ভূষণছড়া এলাকার জনপ্রিয় ইউপি চেয়ারম্যান মামুনুর রশিদ মামুনের বিরুদ্ধে মিথ্যা ও ষড়যন্ত্রমূলক কল্পিত কাহিনী নির্ভর মামলার নিন্দা জানিয়ে উক্ত বানোয়াট মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে সংবাদ সম্মেলন করেছে এলাকাবাসী, জনপ্রতিনিধিসহ পরিবারের সদস্যরা। শনিবার দুপুরে রাঙামাটি প্রেসক্লাবে এই সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন ভূষণছড়া ইউপি চেয়ারম্যান মামুনের স্ত্রী নাসরিন আক্তার।

এসময় উপস্থিত ছিলেন চেয়ারম্যানের বাবা মোঃ সোলাইমান, মা গোলেনুর বেগম, বরকল উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি বক্কর মেম্বার ৫ নং ওয়াডের্র মেম্বার আব্দুস ছবুর, ৭নং ওয়ার্ডের মেম্বার আবু ছৈয়দ, ভুষনছড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুর রাজ্জাক ও চেয়ারম্যান মামুনের বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলার বাদীর মা পারুল বেগম।

উক্ত সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত হয়ে উক্ত মামলার বাদীর মা- পারুল বেগম সাংবাদিকদের বলেন, আমাদের ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মামুনকে ফাঁসানোর জন্য আমার মেয়েকে ব্যবহার করে এবং আমার স্বামীকে মোটা অংকের টাকার লোভ দেখিয়ে একটি কুচক্রী মহল এই ষড়যন্ত্রমূলক মিথ্যা মামলা দায়ের করাইছে। সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয় বিগত ২০১৬ সালে বরকল উপজেলাধীন ভূষণছড়া ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে প্রথমবারের মতো বাঙ্গালী জনপ্রতিনিধি হিসেবে নৌকা প্রতিক নিয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন মামুনুর রশিদ মামুন। তার জয়ী হওয়ার পর থেকেই সেখানকার একটি মহল তাকে নানাভাবে মিথ্যা অভিযোগ উত্থাপন করে হয়রানী করে আসছে।

সংবাদ সম্মেলনে ভূষণছড়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মামুনুর রশিদ মামুনের বিরুদ্ধে বানোয়াট তথ্য দিয়ে দায়েরকৃত মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানানো হয়েছে।