ব্রেকিং নিউজ

প্রধানমন্ত্রীর নিকট সহায়তা কামনা করে রাঙামাটিতে কিন্ডারগার্টেন সংশ্লিষ্টদের মানববন্ধন

॥ শহিদুল ইসলাম হৃদয় ॥

সংগঠন যার যার ঐক্য পরিষদ সবার প্রতিপাদ্যে সারা দেশের ন্যায় রাঙামাটিতেও বাংলাদেশ কিন্ডারগার্টেন স্কুল এন্ড কলেজ ঐক্য পরিষদ (বিকসকপ) রাঙামাটি জেলা শাখার আয়োজনে বাংলাদেশের সকল কিন্ডারগার্টেন তথা ব্যক্তি মালিকানাধীন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পরিচালক, অধ্যক্ষ, শিক্ষক-শিক্ষিকা, কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা ভয়াবহ দুর্যোগ করোনা মহামারিতে মানবেতর জীবন যাপন থেকে উত্তোরনের জন্য প্রধানমন্ত্রীর নিকট আর্থিক সহায়তা কামনা করে মানববন্ধন করেছে।

বৃহস্পতিবার সকালে রাঙামাটি প্রেস ক্লাবের সামনে উক্ত মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, কোভিড-১৯ এর ভয়াবহতার কারণে গত ১৭ মার্চ থেকে আমাদের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো বন্ধ থাকায় আমরা শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে টিউশন ফি আদায় করতে না পারায় প্রতিষ্ঠানের বাড়ী ভাড়া, শিক্ষক-শিক্ষিকাদের বেতন ও কোন প্রকার বিল পরিশোধ করতে পারিনি। এমতাবস্থায় বাড়ীর মালিকদের বাড়ী ভাড়ার চাপে আমাদের অনেক প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দিতে বাধ্য হয়েছে। কোনো কোনো প্রতিষ্ঠান বিক্রি করার নোটিশও ঝুলিয়েছে।

বিভিন্ন পত্রিকায় আপনারা দেখেছেন, মানসিক পেরেশানিতে আমাদের অনেক পরিচালক অসুস্থ হয়ে স্ট্রোক করে মৃত্যুবরণ করেছে, একজন ভাই আত্মহত্যাও করেছে। অন্যদিকে আমরা শিক্ষকদের বেতন দিতে না পারায় আমাদের শিক্ষকরা পেটের দায়ে বাধ্য হয়ে রিক্সা চালাচ্ছে, রাজমিস্ত্রীর যোগালীর কাজ করছে, নৌকা বাইছে, রাস্তায় নেমে আম বিক্রি করছে, দিনমজুরী করতেও বাধ্য হয়েছে। সর্বোপরি আমরা মানবেতর জীবন যাপন করছি। সরকারে কাছে বিনিত অনুরোধ থাকবে অনতিবিলম্বে শিক্ষক ও আমাদের প্রতিষ্ঠানের মালিকদের প্রতি সদয় হয়ে আমাদেরকে আর্থিক সহযোগিতা ও কিন্ডারগার্টেন স্কুল গুলোর পক্ষ থেকে যে ৬ দফা দাবি প্রেরণ করা হয়েছে তা যেনো অবিলম্বে বাস্তবায়ন করা হয় এবং কিন্ডারগার্টেন স্কুল গুলোতে যাতে নিজেস্ব নামে ৮ম শ্রেণীর পরীক্ষা নিতে পারে, সরকার যাতে একটি সহজ সুযোগ ব্যবস্থা করেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশ কিন্ডারগার্ডেন স্কুল এন্ড কলেজ ঐক্য পরিষদ রাঙামাটি জেলা শাখার সভাপতি এবি এম তোফায়েল উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক সাব্বির আহম্মদ,যুগ্ম সাধারন সম্পাদক অ্যাডভোকেট মামুন ভূইয়া,সাংগঠনিক সম্পাদক জিল্লুর রহমান সহ শিক্ষক-শিক্ষিকা, কর্মকর্তা-কর্মচারী ও অন্যন্য নেতৃবৃন্দরা।