ব্রেকিং নিউজ

এবার মৃত ব্যাক্তির বয়স্ক ভাতা আত্মসাতের অভিযোগ সেই মেম্বারের বিরুদ্ধে

॥ সৌরভ দে ॥

দূর্যোগকালীন ২৫০০ টাকা ভাতা প্রদানের ফর্ম বিলি নিয়ে অনিয়মের তদন্ত সম্পন্ন হওয়ার আগেই আরেক অভিযোগে অভিযুক্ত হলেন লংগদু ৪ নং বগাচত্তর ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ডের মেম্বার আলী আহম্মদ। এবারের অভিযোগ আরো গুরুত্বর। নিজের ওয়ার্ডের এক মৃত ব্যাক্তির বয়স্ক ভাতার কার্ড ব্যবহার করে ভাতা উত্তোলন করে তা আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছে এই মেম্বারের বিরুদ্ধে। এরই প্রেক্ষিতে ২ বছর আগে মারা যাওয়া সেই ব্যাক্তিটির ছেলে মো. ইছুব লংগদু উপজেলা কর্মকর্তা বরাবর লিখিত অভিযোগও করেছেন।

অভিযোগকারী মো. ইছুব তার অভিযোগে জানান, আমার বাবা সুন্দর আলী ২০১৮ সালের ২ ফেব্রুয়ারী মারা যান। তার নিজের নামে একটি বয়স্ক ভাতার কার্ড ছিল। তিনি মারা যাওয়ার কিছুদিন পর ৭ নং ওয়ার্ডের মেম্বার আলী আহম্মদ কার্ডটি বাতিল ঘোষণা করে অফিসে জমা দেওয়ার নাম করে আমার কাছ থেকে নিয়ে যান। কিন্তু চলতি বছরের ২২ জুন বয়স্ক ভাতা দেওয়ার সময় মেম্বার আমার বাবার কার্ড ব্যবহার করে টাকা উত্তোলন করে যা ভাতা বিতরণকারী আবুল হোসেন আমাকে অবহিত করে।

এই অভিযোগের বিষয়ে লংগদু উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাইনুল আবেদীনের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করলে তিনি জানান, আমরা এই বিষয়ে একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। এর তদন্ত চলছে। তদন্ত রিপোর্ট হাতে পেলেই আমরা ব্যবস্থা নেবো।

এদিকে  দূর্যোগকালীন ২৫০০ টাকা ভাতা প্রদানের ফর্ম বিলি নিয়ে অনিয়মের তদন্ত রিপোর্ট নিয়ে এখনো ধোঁয়াশাই আছে প্রশাসন। তদন্তকারী কর্মকর্তা লংগদুর এসিল্যান্ড ক্যথোয়াইপ্রু মারমার সাথে মুঠোফোনে দুইদিন পর্যন্ত যোগাযোগের চেষ্টা করলেও তিনি কল রিসিভ করেননি। তবে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জানান, গত বৃহস্পতিবারে রিপোর্ট জমা দেওয়ার কথা ছিল তদন্তকারী কর্মকর্তার কিন্তু উনি জমা দিয়েছেন কিনা সেটি আমি নিশ্চিত না। তারপরো আমি আগামীকালের মধ্যে রিপোর্ট জমা দেওয়ার নির্দেশ দেবো। এর উপর ভিত্তি করে আমরা ব্যবস্থা নেবো।

তবে সুন্দর আলীর বয়স্ক ভাতার কার্ড নেওয়ার কথা স্বীকার করেছেন মেম্বার আলী আহম্মদ। তিনি জানান, আমি সুন্দর আলীর কার্ডটি নিয়েছি এর পরিবর্তে সুন্দর আলীর স্ত্রীকে একটি কার্ড বানিয়ে দেওয়ার উদ্দেশ্য নিয়ে। এসময় তিনি স্বাক্ষী হিসেবে আরেকজন মেম্বারের নাম্বার দিয়ে তার সাথে কথা বলতে অনুরোধ করেন। বার্তালাপের এক পর্যায়ে তিনি প্রতিবেদককে টাকা দিয়ে ম্যানেজের চেষ্টাও করেন।