ব্রেকিং নিউজ

জুরাছড়িতে বাৎসরিক পুষ্টি পরিকল্পনা প্রণয়ন কর্মশালা অনুষ্ঠিত

॥ জুরাছড়ি প্রতিনিধি ॥

মা ও শিশুর পুষ্টি উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছে ‘লীন’ প্রকল্প। প্রান্তিক পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠী শিশু,কিশোরী,গর্ভবর্তী ও দুগ্ধদানকারী মা সহ সব নাগরিকদের পুষ্টিহীনতা দুরীকরণের লক্ষে ‘লীন’ প্রকল্প সহযোগীতায় জুরাছড়ি উপজেলা পরিষদের বাৎসরিক পুষ্টি পরিকল্পনা (২০১৯-২০২০) প্রণয়ন কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়।
উপজেলা পুষ্টি সমন্বয় কমিটির আয়োজনে, কর্মমালায় সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাহফুজুর রহমান। ‘লীন’ প্রকল্প উপজেলা সমন্বয়ক উদ্ভাসন চাকমা’র সঞ্চালনায় কর্মশালায় প্রধান অতিথি ছিলেন,জুরাছড়ি উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান সুরেশ কুমার চাকমা।

এছাড়াও কর্মমালায় উপস্থিত ছিলেন,উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ অনন্যা চাকমা সহ সরকারি বিভিন্ন দপ্তরের লাইন ডিপার্টমেন্টের কর্মকর্তা , ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানগণ এবং স্থানীয় সাংবাদিক ও পুষ্টি কমিটির অন্যান্য সদস্য বৃন্দ।
প্রধান অতিথি উপজেলা চেয়ারম্যান সুরেশ কুমার চাকমা বলেন,পুষ্টি কমিটির অগ্রাধিকার ভিত্তিতে উপজেলার দুর্গম দুমদুম্যা ইউনিয়নে মা ও শিশুদের সচেতনতা সৃষ্টির লক্ষে কাজ করার জন্য সকলের প্রতি অনুরোধ জানান। ‘লীন’ প্রকল্প উপজেলা সমন্বয়ক জুরাছড়ি উদ্ভাসন চাকমা বলেন,আমাদের প্রকল্প জুরাছড়ি উপজেলার ৪টি ইউনিয়নে কার্যক্রম পরিচালনা করে যাচ্ছে। তাই অনগ্রসর প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর পুষ্টি সেবাদানের লক্ষে ‘লীন’ প্রকল্প মা ও শিশু,কিশোরী,দুগ্ধদানকারীদের জন্য কাজ করে যাওয়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন। কার্যক্রম যাহাতে সুষ্ঠুভাবে পরিচালনা করা যায় সেজন্য স্থানীয় জনপ্রতিনিধি সহ পুষ্টি কমিটির সকল সদস্যদের সার্বিক সহযোগিতা কামনা করে।